couurt

কলকাতা: ই-মনোনয়ন মামলায় হস্তক্ষেপ করবে না হাইকোর্ট।  সিপিএমের করা আবেদন খারিজ করে উচ্চ আদালত জানিয়ে দিল এ কথা। সিপিএমের আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য আদালতের কাছে আবেদন জানিয়ে বলেন, বর্ধিত মনোনয়ন জমা করার দিন সারা রাজ্যে হিংসাত্মক পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছিল। যে কারণে অনেকেই ই-মেলের মাধ্যমে মনোনয়ন জমা করেছেন। আদালত ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো নয়টি মনোনয়নকে স্বীকৃতি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে, তা হলে ই-মেলে পাঠানো মনোনয়নগুলিকেও বৈধ হিসাবে মানতে হবে।

বিকাশবাবুর এই দাবির উত্তরে আদালত জানায়, পঞ্চায়েত আইনে এমন কোনো বিধি নেই। ফলে আদালত এ ভাবে হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

হাইকোর্ট রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে গত শুক্রবারের রায়ে জানিয়েছিল, মনোনয়ন জমা করতে ইচ্ছুক রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের মনোনয়ন জমা করার জন্য বাড়তি এক দিনের সুযোগ দিতে হবে। পাশাপাশি তাঁরা যাতে নির্বিঘ্নে মনোনয়ন জমা করতে পারেন, সে দিকে নজর দিয়ে পর্যাপ্ত নিপাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। কিন্তু গত সোমবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত নির্ধারিত মনোনয়ন জমা করার সময়ের আগেই হিংসাত্মক কার্যকলাপের অভিযোগ উঠতে শুরু করে। সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ আদালতে পৌঁছন বিরোধী রাজনৈতিক দলের‌ প্রতিনিধিরা। পূর্বতন মনোনয়ন মামলাটির সঙ্গেই নতুন আবেদনের জবাবে আদালত জানিয়ে দেয়, নতুন করে আর মনোনয়ন সংক্রান্ত্র অভিযোগ গৃহীত হবে না।

তবে এর পরেও সিপিএমের তরফে ই-মনোনয়নের ব্যাপারে আবেদন জানানোর পাশাপাশি আদালত অবমাননার অভিযোগ করা হয়। বুধবার হাইকোর্টে সিঙ্গল বেঞ্চ স্পষ্টতই জানিয়ে দেয়, ই-মনোনয়নের ব্যাপারে আদালত হস্তক্ষেপ করবে না। তবে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হয়ে থাকলে আগামী বৃহস্পতিবার তার শুনানি হবে।

এ দিকে খবর, আদালত অবমাননার অভিযোগে জাতীয় কংগ্রেসের তরফেও হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা করার তোড়জোড় চলছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here