bus accident in west bengal

কলকাতা: আকস্মিক দুর্ঘটনা এড়াতে বাস চালকদের শারীরিক সক্ষমতা সংক্রান্ত সমীক্ষার উদ্যোগ নিতে চলেছে রাজ্যের পরিবহণ দফতর। চালক ছাড়াও কন্ডাক্টরাও এই সমীক্ষার আওতায় পড়বেন। তবে শুধু মাত্র রাজ্য সরকারি বাস পরিবহণ সংস্থাগুলির চালক ও কন্ডাক্টরের উপরই এই সমীক্ষা চালানো হবে। কী উদ্দেশ্য এই সমীক্ষার?

জানা গিয়েছে, রাজ্য পরিবহণ নিগমে এ সময় প্রায় ১৬০০ বাসচালক নিযুক্ত রয়েছেন। এঁদের মধ্যে অধিকাংশের বয়সই ৫০-এর উপর। বিভিন্ন সময়ে এঁদের মধ্যে বেশ কিছু চালক নিজেরাই আবেদন করেছেন, তাঁদের চালকের পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে অন্য কোনো পদে বদলি করা হোক। প্রচণ্ড গরমের সময় তাঁরা বাস চালাতে গিয়ে শারীরিক অক্ষমতার স্বীকার হচ্ছেন। এমনকী কয়েকজনের দৃষ্টিশক্তিরও সমস্যা রয়েছে। আবার এমন কিছু কন্ডাক্টর আছেন যাঁরা ভিড় বাসে টিকিট কাটতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে যান। বাসের একটি নির্দিষ্ট জায়গায় দাঁড়িয়েই তাঁরা কাজ সারেন। যে কারণে অনেক সময় ভাড়া ফাঁকি দেওয়ার ঘটনা সরকারি বাসেই বেশি দেখা যায়।

সম্প্রতি মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনার পর পরিবহণ দফতর  এ ধরনের আগাম সতর্কতা নিতে চলেছে বলে জানা গিয়েছে। সরকারি পরিবহণ নিগমের বিভিন্ন ডিপোগুলিতে রুটিন মাফিক ওই স্বাস্থ্য সমীক্ষা চলবে। সেখানে শারীরিক এবং মানসিক ভাবে সম্পূর্ণ সুস্থ নয়, এমন বাসচালক এবং কন্ডাক্টরদের চিহ্নিত করা হবে। দফতরের এক কর্তা জানিয়েছেন, সুস্থ নন, এমন যে সব কর্মীদের পাওয়া যাবে, তাঁদের অন্যত্র বদলি করার চিন্তা করা হবে।

পাশাপাশি জানা গিয়েছে, সরকারি পরিবহণ সংস্থায় পর্যাপ্ত চালকের চাহিদা মেটাতে নিয়োগ প্রক্রিয়ার ব্যাপারে চিঠি দেওয়া হয়েছে পরিবহণমন্ত্রীকে।

ছবিতে- মুর্শিদাবাদের বাস দুর্ঘটনার পর উদ্ধারকার্য

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন