জল নষ্ট নয়: বাঁকুড়ার গ্রামের দোরে দোরে তিন খুদে পড়ুয়া

জল নষ্ট করা বন্ধ করতে এবং সংরক্ষণের বিষয়ে সবাই সচেতন হবেন বলে আকুই পশ্চিমপাড়ার অধিবাসীরা শপথ নিয়েছেন।

0
threr minor students appeal to save water
তিন খুদে পড়ুয়া। নিজস্ব চিত্র।
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: দুপুরের ভাত ঘুম সেরে সবেমাত্র চা নিয়ে বসেছেন এক গৃহকর্ত্রী। হঠাৎই কলিংবেলের শব্দ। হাজির পাড়ার তিন বাচ্চা। দুর্গাপুজো, সরস্বতীপুজো, কোনো পুজোই তো আশেপাশে নেই। তা হলে এখন আবার কীসের চাঁদা? তাও আবার বাচ্চারা এসেছে।

তিন খুদে পড়ুয়ার হাতে পেপার কাটিং, ছোটো ছোটো কাগজে আর ডায়েরির পাতায় স্লোগান লেখা, ‘জল বাঁচান, জীবন বাঁচান’। কী করে জল বাঁচাতে হবে তা লেখা আছে পেপার কাটিং-এ। আর একজনের হাতে একগোছা চিরকুটে লেখা সেই বার্তা। দলের এক সদস্য একটি চিরকুট তুলে দিল গৃহকর্ত্রীর হাতে।

আরও পড়ুন জল সংরক্ষণে দেশবাসীকে ৩টি পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

এলাকার মানুষকে ‘জল সংকট’ বিষয়ে সচেতন করতে এই ভাবেই পড়ার ফাঁকে পথে নামল বাঁকুড়ার ইন্দাসের আকুই পশ্চিমপাড়ার তিন খুদে পড়ুয়া। আকুই ইউনিয়ন হাইস্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র অদ্রিশ মুখার্জি, আকুই রামকৃষ্ণ শিশু শিক্ষা নিকেতনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণির দুই ছাত্রী প্রান্তিক ও সায়ন্তিকা মুখার্জিরা সকাল থেকেই বাড়ি বাড়ি জল নষ্ট না করার বার্তা দিচ্ছে।

এত কিছু থাকতে হঠাৎই জল নষ্ট করা বন্ধের আবেদন নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘোরার কারণ জানতে চাইলে অদ্রিশ বলে, “ক’ দিন ধরে খবরের কাগজে চেন্নাই-এর জল সংকটের খবর পড়েছি। ওখানে লেখা আছে আমরা জল নষ্ট করলে একদিন আমরাও খাবার জল পাব না। জলই জীবন। তাই আমাদের প্রত্যেকের উচিত জল বাঁচানো।”

পাড়ার এই তিন খুদের অভিনব উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন প্রত্যেকেই। এ বার থেকে জল নষ্ট করা বন্ধ করতে এবং সংরক্ষণের বিষয়ে সবাই সচেতন হবেন বলে আকুই পশ্চিমপাড়ার অধিবাসীরা শপথ নিয়েছেন।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.