ওয়েবডেস্ক: প্রবল বৃষ্টি এবং মুহুর্মুহু বজ্রপাত নিয়ে শক্তিশালী কালবৈশাখী তাণ্ডব চালাল কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে। তবে অন্য বারের মতো ছোটোনাগপুর মালভূমি নয়, এই ঝড়ের উৎপত্তি হয়েছে বিহার-নেপাল সীমান্তে।

মঙ্গলবার সকাল থেকে বিহার-নেপাল অঞ্চলে আবহাওয়া ক্রমশ খারাপ হতে শুরু করে। দুপুরে ১টা নাগাদ ব্যাপক শিলাবৃষ্টি হয় বিহারের মিথিলা অঞ্চল এবং ঝাড়খণ্ডের দেওঘরে। বিহার-ঝাড়খণ্ডের সেই মেঘপুঞ্জই দক্ষিণবঙ্গের দিকে এগিয়ে আসতে শুরু করে।

আরও পড়ুন সংখ্যাগরিষ্ঠতা বজায় রাখতে পারবে কি বিজেপি? জানিয়ে দিল জনমত সমীক্ষার উপর সমীক্ষা

বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ প্রবল ঝড়বৃষ্টি শুরু হয় দুর্গাপুরে। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, মরশুমের এটাই সব থেকে শক্তিশালী ঝড়। সেই সঙ্গে ব্যাপক শিলাবৃষ্টিও হয়। এই মেঘপুঞ্জই নদিয়া, হুগলি, উত্তর ২৪ পরগণা হয়ে এগিয়ে আসে কলকাতার দিকে। সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টার একটু পরেই কলকাতায় শুরু হয়ে যায় প্রবল কালবৈশাখী।

সরকারি ভাবে এ দিনের ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৮৩ কিমি। কিন্তু এই ঝড় যে শহরের কিছু কিছু জায়গায় ঘণ্টায় ৯০ কিমিরও বেশি গতিতে ছিল, সেটা বোঝাই যাচ্ছে। শহরের বেশকিছু জায়গায় গাছ পড়েছে ঝড়ের দাপটে। ঝড়ের সঙ্গেই হয়েছে প্রবল বৃষ্টি। বৃষ্টির ফলে উত্তর শহরতলির বেশ কিছু অঞ্চলে জল জমে গিয়েছে।

প্রবল গরমের পর এ দিনের এই বৃষ্টি, মানুষের মনে অনেকটাই স্বস্তি এনে দিয়েছে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.