মরশুমের উষ্ণতম দিনের পরেই বিক্ষিপ্ত ঝড়বৃষ্টি কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে

norwester

খবর অনলাইনডেস্ক: দুপুরে রোদ এমন ছড়ি ঘোরালো যে আপাতত মরশুমের উষ্ণতম দিনটি রেকর্ড করে ফেলল কলকাতা-তথা গোটা দক্ষিণবঙ্গই। কিন্তু বিকেলের পরেই বিক্ষিপ্ত ঝড়বৃষ্টির কারণে খানিকটা হলেও স্বস্তি ফিরল মানুষের মধ্যে।

গত কয়েক দিন ধরেই ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছিল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। বুধবার পারদ অনেকটাই বেড়ে যায় দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায়। কলকাতায় (Kolkata) সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পৌঁছে গিয়েছিল ৩৭ ডিগ্রিতে। তাপমাত্রাটি স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি বেশি।

গত কয়েক দিনের তুলনায় এ দিন গরমের চরিত্রও কিছুটা অন্য রকম ছিল। গত কয়েক দিন ছিল প্রধানত শুকনো গরম। কিন্তু এ দিন সকাল থেকে রোদের পাশাপাশি ছড়িয়ে ঘুরিয়েছে আর্দ্রতাও। ফলে অস্বস্তি অনেকটাই বেশি ছিল এ দিন।

দক্ষিণবঙ্গে এ দিন সব থেকে বেশি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে বাঁকুড়ায় (৩৯.১ ডিগ্রি)। এর পর উষ্ণতায় দ্বিতীয় স্থানে ছিল মেদিনীপুর (৩৮.৭ ডিগ্রি)। এ ছাড়া পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় সর্বত্র সর্বোচ্চ পারদ ৩৭-৩৮ ডিগ্রিতে ঘোরাফেরা করেছে।

আরও পড়ুন যাদবপুরের মানুষের জন্য ওষুধ পৌঁছে দেওয়ার পরিষেবা চালু করলেন মিমি চক্রবর্তী

তবে এই তীব্র গরমের (Summer 2020) প্রভাবেই বিকেলের দিকে ওড়িশা-ঝাড়খণ্ড সীমান্তে বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হয়। সেই মেঘ থেকে বিক্ষিপ্ত ঝড়বৃষ্টিও হয়। তবে খুব বড়ো মেঘপুঞ্জ না হওয়ার ফলে শুধুমাত্র ঝাড়গ্রাম, দুই মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগণা আর কলকাতার দক্ষিণাংশেই ঝড়বৃষ্টি সীমাবদ্ধ ছিল।

তবে এই ঝড়বৃষ্টির ফলে গরম থেকে রেহাই মিলল এমনটাই একদমই নয়। বরং পারদ আরও বাড়বে বৃহস্পতিবার থেকে। কলকাতার তাপমাত্রা ৩৮-৩৯ ডিগ্রি ছুঁয়ে ফেলতে পারে। পশ্চিমাঞ্চলে তাপমাত্রা ৪০ পেরোতে পারে। আগামী সপ্তাহে গরমের দাপট কিছুটা কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.