মনোনয়ন জমা দিয়ে ফের ভারতীকে বার্তা দেবের

0

ওয়েবডেস্ক: শনিবার মনোনয়ন জমা করলেন ঘাটাল কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী তথা বিদায়ী সাংসদ দেব (দীপক অধিকারী)। এ দিন মেদিনীপুর কালেক্টরেট অফিসে মনোনয়ন জমা করে বেরিয়ে আসার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে তিনি প্রতিপক্ষ বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে আবার একবার শুভেচ্ছা জানালেন।

ঘাটালে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ। প্রথম থেকেই ভোটপ্রচারে গিয়ে তিনি তৃণমূলের বিদায়ী সাংসদ দেবকে নিশানা করেছিলেন। তাঁর কটাক্ষের জবাবে অবশ্য রাজনৈতিক সৌজন্যতাকেই বড়ো করে তুলে ধরেছেন দেব। এবং সেটা একাধিক বার। ভারতী ঘোষের আক্রমণ প্রসঙ্গে দেব বলেছেন, ‘‘কাউকে ছোটো করে বড় হওয়া যায় না। কাদা ছোড়াছুড়ি না করে উন্নয়ন নিয়ে কথা বলুন। পুলিশ সুপার হিসেবে ওঁকে ৩-৪ বছর পেয়েছিলাম। উনি হয়তো ব্যস্ত ছিলেন, যাই হোক। ভারতীদির বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ নেই। এটাও আশা করব, উনি যেন কাদা না ছোড়েন। না জেনেশুনে যেন কোনও মন্তব্য না করেন।’’ 

এ দিন মনোনয়ন পেশ করে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরেও দেব জানান, “ঘাটালের মানুষের সঙ্গে পাঁচ বছর ছিলাম। সৎভাবে মানুষের কাজ করার চেষ্টা করেছি। তাঁরা যদি মনে হয় যে আমি কাজ করতে সমর্থ, তা হলে আমাকেই ভোট দেবেন”।

গত শুক্রবার দাসপুর সোনা জালিয়াতি কাণ্ডে ভারতীকে জেরা করে সিআইডি। সেখানে সিআইডির তদন্তকারীদের ঘিরে ধরে বিজেপির বিক্ষোভ প্রদর্শনের কথা জানা যায়। সে প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে দেব বলেন, “উনি ওনার কাজ করছেন, আমরা আমাদেরটা করছি৷ উনিও প্রচারের জন্য খুব খাটছেন দেখতে পাচ্ছি৷ তবে আমার দল বেশি খাটছে৷ এখন মানুষ যাঁকে বেশি যোগ্য মনে করবেন, তাঁকেই ভোট দেবেন”৷

একই সঙ্গে এ দিনও তিনি বলেন, “আমি কাদা ছোড়াছুড়ি করতে পারব না। কারণ, এমনিই রাজনীতির প্রতি মানুষের আগ্রহ কমছে। আমরা যদি এটা করি, তা হলে সাধারণ মানুষের আর বিশ্বাস থাকবে না। আমি মনে করি রাজনীতি তে সৌজন্য বজায় রাখাটা খুব জরুরি। শান্তিশৃঙ্খলা থাকুক”।

উ্ল্লেখ্য, এর আগে ঘাটালে প্রচারে গিয়ে ভারতী দাবি করেছিলেন, “সবুজসাথী প্রকল্পে পচা সাইকেল দেওয়া হচ্ছে। মেরামত করতে সাড়ে তিনশো টাকা লাগে। প্রত্যেক প্রকল্পের টাকা মেরে বড়োলোক হয়েছে তৃণমূল”।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here