Anubrata Mondal

ওয়েবডেস্ক: গত রবিবার আশুগ্রামে তৃণমূলের দলীয় সভায় দলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের বক্তব্য সম্বলিত একটি ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। যে ভিডিও দেখে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, শাসক দল কী ভাবে বিরোধী দলের নেতৃত্বকে বিনা দোষে পুলিশ কেস দিচ্ছে, এটাই তার প্রমাণ।

ওই ভিডিওয় অনুব্রতকে স্পষ্ট বলতে শোনা গিয়েছে, ”ওই মোটা মহিলার নামটা কি যেন, যার কাপড়ের দোকান আছে? বিজেপি করে না? গাঁজা কেসে ওকে গ্রেফতার করিয়ে দিচ্ছি। তোরা কন্ট্রোল করতে পারবি কিনা জানা নইলে আমি ওকে জেলে ভরে দিচ্ছি”। পাশ থেকে কেউ একজন বলে ওঠে মহিলার নাম সঙ্গীতা। অনুব্রত তখন সরাসরি সঙ্গীতার নাম ধরেই তাঁকে গ্রেফতার করানোর নির্দেশ দেন। এমনকী তিনি বলেন, “চেষ্টা-ফেস্টা নয়, বল হ্যাঁ কি না”।

জানা গিয়েছে, ওই বৈঠকেই উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ভিডিও ক্লিপটি দেখার পর বিজেপি নেত্রী সঙ্গীতা চক্রবর্তী সংবাদ মাধ্যমের কাছে বলেন, “এই ভিডিও ক্লিপ থেকেই স্পষ্ট কী ভাবে রাজ্যের শাসক দল বিরোধীদের জেলে পাঠাচ্ছে।গাঁজা কেসের কথা বলে তারা কী বোঝাতে চাইছে? তার মানে কী, এখনও পর্যন্ত গাঁজা কেসে যে সমস্ত বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের জেলে পাঠানো হয়েছে, সেগুলি মিথ্যা”?


আরও পড়ুন: শিক্ষক দিবস ২০১৮: হোমওয়ার্ক না করার পাঁচটি মজার অজুহাত

এ ব্যাপারে অবশ্য অনুব্রতবাবুকে পাল্টা কোনো মত প্রকাশ করতে শোনা যায়নি। যদিও তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়েছে, বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ প্রায়শই গরাদে পুরে দেওয়ার হুমকি দেন। সে ক্ষেত্রে অনুব্রত যদি হন, দিলীপবাবুও সমান ভাবে দোষী।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে প্রাপ্ত

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন