“আমার সামনে সমস্ত রাস্তা খোলা”, মদনের মন্তব্যে নতুন জল্পনা!

0
madan mitra and arjun singh
ভোটের ফলাফল ঘোষণার দিন ভাটপাড়ায় অর্জুন সিংয়ের সঙ্গে মদন মিত্র। প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: ভাটপাড়া বিধানসভার উপনির্বাচনে অর্জুন-পুত্র পবন সিংহের কাছে হেরে গিয়েছেন তৃণমূলের পোড়খাওয়া নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র। তবে ভোটের ফলে যাই হোক, দলের কাছে তাঁর কোনো খামতি ধরা পড়েনি। কিন্তু ফেসবুক লাইভে অতিজনপ্রিয় মদন ইঙ্গিতপূর্ণ ভাবে জানালেন, “আমি চৌরাস্তায় দাঁড়িয়ে আছি… আমার সামনে সমস্ত রাস্তা খোলা”। এমন মন্তব্যের পরই রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়ে যায় জোর জল্পনা।

সারদাকাণ্ডে জেলে যাওয়ার পর তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলে আশঙ্কার সৃষ্ঠি হয়। কামারহাটির প্রাক্তন বিধায়ক জেলখাটার পর নিজের রাজনৈতিক জীবনে ইতি টানতে পারে বলেও ইতিউতি শোনা যায়। কিন্তু দীর্ঘ প্রায় ২২ মাস জেল খেটে বেরোনোর পর সাময়িক ব্যবধানেই তিনি স্বমহিমায় চলে আসেন তৃণমূলে। মাঝে বিজেপি-যোগের খবর উড়িয়ে দিয়ে যুব তৃণমূল সভাপতি তথা ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিযেক বন্দ্যোপাধ্যায়ে কাছে চলে আসেন। তাঁর লোকসভা ভোটে প্রার্থী হওয়া নিয়েও জল্পনা ছড়ায়।

তবে লোকসভায় টিকিট না পেলেও ভাটপাড়ার বিধায়ক দল ছাড়লে উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী হিসাবে ফের উঠে আসে মদনেরই নাম। কিন্তু পরাজিত হন। তবে এখন তিনি অনুযোগের সুরেই বলছেন, তাঁর নিজের এলাকা হিসাবে পরিচিত কামারহাটি থেকে অনেকটা দূরে তিনি টিকিট পেয়েছিলেন। তৃণমূলের অন্যান্য নেতারা নিজের এলাকাতেই টিকিট পান।

প্রায় ৫০ মিনিটের ফেসবুক লাইভে মদনের কথায় উঠে আসে অ্যালিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ডের সেই ছোট্ট মেয়েটির কথা। যে ঘুমের মধ্যে পথ হারিয়ে ফেলেছিল। তার সঙ্গে একটা ওয়াইজ ক্যাট ছিল বলে উল্লেখ করে মদন বলেন, “এখন আমরা অনেক ওয়াইজ মানুষের পরামর্শ নিচ্ছি…আমার কাছে কোনো ওয়াইজ ক্যাট নেই”।

তবে তিনি যে ওই গল্পের অ্যালিস নন, সে কথাও জানিয়ে দেন। একই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন, তৃণমূল ছেড়ে যাওয়ার কোনো চিন্তা তাঁর মাথায় নেই। তিনি এ সব কথা ভাবছেনও না। তবে ‘রাস্তা খোলা’ থাকার ইঙ্গিত ইন্ধন তো জোগাবেই।

[ ভাটপাড়ায় কিশোরের মৃত্যু ঘিরে অর্জুন-মদন বাকযুদ্ধ ]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.