খবর অনলাইন ডেস্ক: বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, রবিবার সাংবাদিক বৈঠক করার কথা ছিল শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari)। তবে তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলের দাবি, “কোনো সাংবাদিক বৈঠকের পরিকল্পনা ছিল না। তৃণমূলই এ খবর ছড়িয়েছে”।

শুভেন্দু-ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত তৃণমূল নেতা কণিষ্ক পণ্ডা বলেন, “শুভেন্দু অধিকারী বরাবরই নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন। আজ নতুন করে কিছুই বলার নেই। তাড়ালে আমরা চলে যাব। আমরা এখানে (তৃণমূলে) থাকার জন্য কোনো ভাবেই আকাঙ্ক্ষিত নই। কোনো পদের লোভী নন শুভেন্দু। তাই আমাদের পরিষ্কার বক্তব্য, এই কথাগুলো বাজারে রটানো হয়েছে। আমরা কোনো অপেক্ষা করছি না”।

পাশাপাশি তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তিনি বলেন, “আমাদের অবস্থান স্পষ্ট। তুমি তাড়াওনি, আমিও যাইনি। শুভেন্দু অধিকারীর মেরুদণ্ডটা বাঁকা নয়, মাথা উঁচু করে চলেন। সুতরাং এত কিছু বলার পরে, এত ভাষা বলার পরে আর কিছু বলার থাকে না। সাংবাদিক বৈঠক করার কথা তিনি কোনো সময়, কোনো সভায় বলেননি। এগুলো তৃণমূল সূত্রের খবর। তিনি যখন বলবেন, তিনি সবাইকে ডেকে বলবেন। নিশ্চয় জানতে পারবেন। প্রকাশ্যে দক্ষিণ কলকাতার কোনো একটি জায়গায় তিনি বলবেন”।

গত মঙ্গলবার রাতে তিন তৃণমূল সাংসদ এবং ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে শুভেন্দুর বৈঠকের পর সৌগত রায় (Saugata Roy) জানান, “সমস্যা মিটে গিয়েছে”। যদিও বুধবার দুপুরে জানা যায়, তাঁকে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে শুভেন্দু লিখেছিলেনন, “কোনো সমস্যা মেটেনি। এক সঙ্গে কাজ করা অসম্ভব”। তৃণমূলের তরফেও তাঁর সঙ্গে আর আলোচনা করা হবে না বলে স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে। এর পরই জল্পনা ছড়ায় রবিবার সাংবাদিক বৈঠকে শুভেন্দু নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়ে দিতে পারেন। তবে সেটা যে শুধুই তৃণমূলের ‘রটনা’ এ দিনে রাজ্যের শাসক দলের কোর্টে বল ঠেলে দিয়ে দাবি করলেন শুভেন্দু-ঘনিষ্ঠ ওই নেতা।

ও দিকে আগামী সোমবার মেদিনীপুরে সভা করবেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সভায় শুভেন্দু থাকা, না থাকার বিষয়টিই এখন রাজনৈতিক মহলের আলোচনার বিষয়।

আরও পড়তে পারেন: ৯ বছর পর গড়বেতায়! সুশান্ত ঘোষ বললেন, ‘রাজনীতির ইতিহাসে নতুন অধ্যায়ের শুরু’

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন