‘কাটমানি’ নেওয়ার অভিযোগে ভাইস চেয়ারম্যানকে সরিয়ে দিল তৃণমূল পরিচালিত রাজপুর-সোনারপুর পুরসভা

0
ফাইল ছবি
উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়

‘কাটমানি-বিপ্লবে’ পদ হারাতে হল দক্ষিণ ২৪ পরগনার রাজপুর-সোনারপুর পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা সরকারকে। শনিবার পুরবোর্ড সার্কুলার জারি করে সরিয়ে দেয় তাঁকে।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলীয় কাউন্সিলারদের নিয়ে বৈঠকে নির্দেশ দেন, কাটমানির টাকা নিয়ে থাকলে ফেরত দিন। তার পর থেকেই জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। কাটমানি হিসাবে দেওয়া টাকা ফেরত চেয়ে কাউন্সিলার অথবা গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যদের দ্বারস্থ হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এ ব্যাপারে সরকারি ভাবে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এ দিন জানা যায়, বেশ কয়েক দিন ধরেই শান্তা সরকারের বিরুদ্ধে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ উঠছিল। একই সঙ্গে সাধারণ মানুষের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগও ছিল তাঁর বিরুদ্ধে। এক সময়ের তৃণমূল জেলা সভাপতি শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অনুগামী হিসাবে পরিচিত ছিলেন তিনি। কিন্তু লোকসভা ভোটের আগে থেকেই একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় এ দিন তাঁকে ভাইস চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় পুরবোর্ড।

এত দিন তাঁর হাতে ছিল বিল্ডিং, প্ল্যানিং, পিএনসিপি, সাধারণ প্রশাসন-সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দফতরগুলো। এখন শান্তা শুধু মাত্র পুরসভার ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর।

এ প্রসঙ্গে পুরসভার সিআইসি সদস্য অমিতাভ চৌধুরী জানিয়েছেন, শান্তা সরকারকে সরিয়ে দেওয়ার পর সাধারণ মানুষকে পরিষেবা দিতে পুরসভা আরও ভালো ভাবে কাজ করতে পারবে। দল এবং পুরসভার চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্তেই এই অপসারণ বলে জানিয়েছেন তিনি।

এখন তাঁর মোবাইল সুইচড অফ। এমনকী বাড়িতে গিয়ে খোঁজ করেও তাঁর দেখা পাওয়া যায়নি। তবে সূত্রের খবর, শান্তা এখনও পর্যন্ত এই ধরনের কোনো সার্কুলার পাননি বলে দাবি করেছেন। যে কারণে এর বেশি কিছু মন্তব্য করতে চাননি অভিযুক্ত ভাইস চেয়ারম্যান।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন