জহর সরকার। ছবি: anandabazar.com থেকে

কলকাতা: দলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন তৃণমূল সাংসদ এবং প্রাক্তন আইএএস অফিসার জহর সরকার (Jawhar Sircar)। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে গত সোমবার সংবাদমাধ্যমে সরব হন রাজ্যসভার সাংসদ। শনিবার জল্পনা ছড়ায় তৃণমূলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে তাঁকে। তবে তৃণমূলের কথায়, এ সব কিছুই রটনা।

কাউকে বাদ দেওয়া হয়নি?

বিভিন্ন মিডিয়া রিপোর্টে দাবি করা হয়, জহরের সঙ্গে তাঁর বাড়ির বাইরে সামনাসামনি দেখা করেন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়। সেখানে দলের মনোভাব জহরকে জানিয়ে দেন তিনি। তার পরই তৃণমূলের রাজ্যসভা সাংসদদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় জহরকে।

যদিও তৃণমূলের এক জাতীয় স্তরের নেতা জানিয়েছেন, কাউকে কোনো হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বাদ দেওয়া হয়নি। এ সব কিছুই রটনা, পুরনো হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যাঁরা ছিলেন, তাঁদের সকলকে নিয়েই আবারও নতুন গ্রুপ তৈরি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, তৃণমূলের রাজ্যসভার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ১৩ জন সদস্য রয়েছেন। রাজ্যসভার এক তৃণমূল সাংসদ জানিয়েছেন, বিশেষ প্রয়োজনে পুরনো হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপটি ভেঙে নতুন গ্রুপ তৈরি করা হয়েছে।

অনেক কিছুই মানতে পারছেন না জহর

পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অনুব্রত মণ্ডল গ্রেফতার হওয়ার পরে তিনি অস্বস্তি নিয়ে তৃণমূলে রয়েছেন বলে দাবি করেন জহর। প্রাক্তন আমলার আক্ষেপ, “এ বছর গোড়ার দিকেও একটা গর্বের দিক ছিল যে, মোদীর শক্তির সঙ্গে লড়াই করতে পারে যে, তার প্রতিনিধি আমি। পার্লামেন্টে বুকের ছাতি ফুলিয়ে ঘুরতাম। এখনও ঘুরতে পারি। তবে, একটা কমপ্লেক্স লাগে। লোকে যে ভাবে দেখে, টিপ্পনি কাটে, খারাপ লাগে। মধ্যবিত্ত বাড়িতে বড়ো হয়েছি তো”!

এবিপি আনন্দ-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে দুর্নীতি ইস্যুতে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন জহর। তিনি বলেন, “যখন টিভিতে দেখলাম বিশ্বাসই করতে পারিনি। কারও বাড়ি থেকে এত টাকা বেরোতে পারে! কল্পনার অতীত। এমন দুর্নীতির সিন টিভিতে কম দেখা যায়”।

তিনি আরও বলেন, “রাজনীতির কায়দা আমি বুঝি না। আমার আবেদন থাকবে, যারা ধরা পড়ছে, যারা ধরা পড়তে পারে , যারা দুর্নীতিগ্রস্ত, তাদের চিহ্নিত করতে হবে। একুশের সময় বলেছিলেন, কাটমানির কথা। অনেকে ফেরত দিয়েছে। আমাদের সেই নীতি মানতেই হবে। রাজনীতির নামে টাকা বানাবো। বান্ধবীর নামে ফ্ল্যাট কিনব, মানা যায় না। পার্থকে আমি চিনি। কিন্তু বিশ্বাস করতেই পারছি না। দুর্নীতির টাকা দিয়ে এ ভাবে অলঙ্কৃত করা, কেমন গা শিরশির করে”।

আরও পড়তে পারেন: 

চিনা অ্যাপে ঋণ কেলেংকারি, পেটিএম-সহ বিভিন্ন পেমেন্ট গেটওয়ের অফিসে ইডি-অভিযান

সবচেয়ে বড়ো পাপ্পু! অমিত শাহের কার্টুন ছেপে টিশার্ট আনল তৃণমূল

নীতীশ কুমারের দলে বড়ো ভাঙন, ৫ বিধায়ক যোগ দিলেন বিজেপি-তে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন