subharngshu-roy

ওয়েবডেস্ক: লোকসভা ভোটের আগে বীজপুরে দলের সাংগঠনিক কাঠামোয় আগাপাশতলা পরিবর্তন নিয়ে আসছে তৃণমূল কংগ্রেস।  বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের নিজের এলাকা হিসাবে পরিচিত এই বিধানসভায় তৃণমূলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন তাঁর পুত্র শুভ্রাংশু।

হালিশহর ও কাঁচরাপাড়ার শহর যুব তৃণমূলের দুই সভাপতি প্রণব লোহ এবং মিন্টু সামন্তকে পদ থেকে অপসারিত করা হয়েছে গত ৩০ জুন। আর তার পর থেকেই জেলার রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে জোর জল্পনা। তৃণমূলের তরফে অবশ্য এই অপসারণকে ‘নিয়মমাফিক বদল’ বলেই মন্তব্য করেছেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা যুব তৃণমূল সভাপতি পার্থ ভৌমিক।

সূত্রের খবর, গত শনিবার ছিল মধ্যমগ্রামে ছিল জেলা তৃণমূলের ২১ জুলাইয়ের প্রস্তুতি সভা। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়, পার্থ ভৌমিক এবং মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক-সহ বেশ কয়েকজন বিধায়ক ও তৃণমূল নেতৃত্ব। সেখানেই না কি প্রণব ও মিন্টুর অপসারণের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়।  ওই মঞ্চ থেকেই বীজপুর যুব তৃণমূলের নতুন আহ্বায়ক হিসাবে সুজিত দাসের নাম ঘোষণা করা হয়। সুজিত বর্তমানে জেলা যুব তৃণমূলের সহ-সভাপতি পদে আছেন।

আরও পড়ুন: আচমকা বাবার প্রতি কেন এতটা আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছেন মুকুল-পুত্র?

অন্য দিকে প্রণব ও মিন্টু এলাকায় শুভ্রাংশুর অনুগামী হিসাবেই পরিচিত। আকস্মিক ওই দুই শুভ্রাংশু-ঘনিষ্ঠকে অপসারণ করে জেলা নেতৃত্ব কী বার্তা দিলেন, তা নিয়েই রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে পর্যালোচনা। কিছু দিন আগেই হালিশহর ও কাঁচরাপাড়ার দুই তৃণমূল সভাপতিকেও অপসারণ করা হয়েছে। তাঁদের সরিয়ে দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট দুই পুরপ্রধানের হাতে। সব মিলিয়ে লোকসভা ভোটের আগে শুভ্রাংশু শিবিরে বড়োসড়ো ধাক্কা লাগতে চলেছে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।