Jhargram
বালি খাদান খতিয়ে দেখছেন জেলাশাসক আয়েশা রানি এ

নিজস্ব সংবাদদাতা: ঝাড়গ্রাম জেলা জুড়ে অবৈধ বালি খাদান রুখতে আরও একাধিক পদক্ষেপ জেলা প্রশাসনের। বিভিন্ন নদীতে অব্যবহৃত, পড়ে থাকা সমস্ত খাদানকে চিহ্নিত করা শুরু করল প্রশাসন। সেই সঙ্গে বালি তুলে নিয়ে যাওয়া প্রতিটি গাড়ির তথ্য হাতের নাগালে পেতে চালু হচ্ছে বিশেষ নজরদারি।

ঝাড়গ্রাম জেলায় মূলত তিনটি বড় নদী থেকে বালি তোলা হয়ে থাকে। যেগুলি হলো কংসাবতী, সুবর্ণরেখা ও ডুলুং। এই তিনটি নদীতে এই মুহূর্তে ১১২টি বৈধ বালি খাদান রয়েছে। ১৪৫টি নতুন খাদান চিহ্নিত করে টেন্ডার প্রক্রিয়া চলছে। যেগুলি চলতি মাসের মধ্যেইযোগ্য সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হবে। এর পরেও এই সমস্ত নদীগুলি থেকে অব্যবহৃত এবং পড়ে থাকা আরও খাদান রয়েছে কি না,  তা খতিয়ে দেখার কাজ শুরু করল প্রশাসন।

সেগুলিকে চিহ্নিতকরণের করার জন্য দু’দিন ধরে জেলার সর্বত্র এই কাজ শুরু করে দিয়েছেন জেলা শাসক। বিশেষ একটি টিম সর্বাধিক যতগুলি জায়গা থেকে বালি তোলা যেতে পারে, বা খাদান তৈরি করা যেতে পারে সেগুলি চিহ্নিতকরণ করে ১০ দিনের মধ্যে নথি জমা দেবে দফতরে। ফলে অবৈধ খাদান তৈরি করার আর কোনো সুযোগ থাকবে না।

আরও পড়ুন: রথযাত্রার অনুমতি দিল না হাইকোর্ট

সম্প্রতি প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জেলাশাসক থেকে প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশে অবৈধ খাদান নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়ে গিয়েছেন। তার পর থেকে অভিযান জোরদার করা হয়েছে অবৈধ খাদান নিয়ে। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই বহু অবৈধ বালি লরি আটক করেছে ভূমি রাজস্ব দফতর।