nbmch

ওয়েবডেস্ক: উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ এবং হাসপাতালে দালাল-রাজ এবং চিকিৎসা সংক্রান্ত অব্যবস্থা নিয়ে অভিযোগ উঠছিল দীর্ঘ দিন ধরেই। সম্প্রতি একটি বামপন্থী যুব সংগঠনের সদস্যরা হাসপাতালের সুপার ডাঃ মৈত্রেয়ী করকে প্রতিবাদপত্র দিতে গেলে খণ্ডযুদ্ধ বেধে যায় পুলিশের সঙ্গে। এমনকি শিলিগুড়ির বিধায়ক তথা মেয়র অশোক ভট্টাচার্য পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবকে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়ে পত্র পাঠান। তার পরই সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের মন্ত্রী তথা হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান গৌতম দেব ঘোষণা করেন, খুব শীঘ্রই এক‌টি মাল্টিসুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল তুলে দেওয়া হবে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালের হাতে।

মন্ত্রী জানান, এই প্রকল্পে ৬৪ কোটি ‌টাকা খরচ করবে সরকার। ২৬৮ শয্যাবিশিষ্ট ওই হাসপাতালে পরিষেবার কাজ শুরু হবে আগামী ২০১৮ সালের জুন মাস থেকেই। পাশাপাশি উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালের সৌন্দর্যায়ন এবং আনুষঙ্গিক আধুনিকীকরণের জন্য সরকারের বৃহৎ পরিকল্পনা রয়েছে। আরও বিশদে তিনি বলেন, হাসপাতালের যে প্রতীক্ষালয়‌টি রয়েছে সেটিকে নতুন করে গড়ে তোলা হবে। এ ছাড়া অ্যাম্বুলেন্স শেডটিকেও ঢেলে সাজা হবে। পিডব্লুডি এবং শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নয়ন পর্ষদের সহযোগিতায় এই কাজ করা হবে। আইসিইউ ইউনি‌টটির বর্ধিতকরণের পাশাপাশি নির্মীয়মাণ নার্সিং ইনস্টিটিউটের কাজও দ্রুত সেরে ফেলা হবে। এ ছাড়া হাসপাতালের সামনে যানজট এড়াতে একটি স্থায়ী বাস-অটো স্ট্যান্ড তৈরির কথাও জানান তিনি।

যদিও বিতর্ক এতেও মিটছে না। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বিডিওকে জানানো হয়েছে, রোগী সংখ্যার দিকে নজর রেখে হাসপাতালের শয্যাসংখ্যা বাড়িয়ে ১৪৭৩টি করতে হবে। আবার অশোকবাবুর দাবি, হাসপাতালে পরিষেবা নিতে আসা রোগীর আত্মীয়-পরিজনদের প্রায়শই বিরক্ত করে থাকে দালালরা। তাদের কথা মেনে না চললে ভীতি প্রদর্শনও করা হয়। আবার চিকিৎসকদের একটি অংশ ঠিকমতো কর্তব্য পালন করেন না। সে সব বিষয়গুলি নিয়েও ব্যবস্থা নিতে হবে সরকারকে। মন্ত্রী সাংবাদিক বৈঠকে দালালদের গতি-প্রকৃতি রুখতে হাসপাতাল চত্বরে সিসি‌টিভি লাগানোর কথা ঘোষণা করেই দায় সেরেছেন বলে অভিযোগকারীদের বক্তব্য।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here