প্রশিক্ষণহীনদের নিয়োগ নিয়ে এত দিন ধরে জোরাজুরি করার পর রাজ্য আদালতে ঘোষণা করল, প্রশিক্ষিত  টেট-উত্তীর্ণদেরই  প্রাথমিক শিক্ষক  নিয়োগে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। রাজ্যের এই ঘোষণার ফলে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে যে দীর্ঘ চাপানউতোর চলছে তা অবসানের ক্ষেত্রে কিছুটা আশার আলো দেখছেন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষক পদপ্রার্থীরা। তবে এই ঘোষণায় স্বভাবতই আতান্তরে পড়বেন প্রশিক্ষণহীনরা। টেট মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সি এস কারনান প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার কলকাতা হাইকোর্টে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে রাজ্য তার অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়ে দেয়। রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়, রাজ্যে যথেষ্ট প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থী রয়েছেন। যাঁরা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রথম ধাপ অর্থাৎ টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন তাঁদের আগে নিয়োগ করা হবে। যদি তাঁদের দিয়েই শূন্যপদ পূর্ণ হয়ে যায় তা হলে এক জন প্রশিক্ষণহীনকেও নিয়োগ করা হবে না।

২০১৫ সালের ৩১ মার্চ কেন্দ্র নির্দেশ দিয়েছিল, প্রশিক্ষণহীনরা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষায় বসতে পারবে না। কিন্তু সেই সময়ে রাজ্যের বক্তব্য ছিল, যথেষ্ট সংখ্যক প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীর অভাব রয়েছে। তাই প্রশিক্ষণহীনদের পরীক্ষায় বসতে দিতে হবে। এই মর্মে সময়সীমা এক বছর বড়ানোর আবেদনও জানায় রাজ্য। যা মেনে সময়সীমা বাড়ানো হয় চলতি বছরের ৩১ মার্চ অবধি। সেই মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে রাজ্য সরকার ফের মেয়াদ বাড়ানোর আর্জি জানায় কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে। তারই প্রতিবাদ করে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীরা কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। তাঁদের দাবি ছিল শূন্যপদের তুলনায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্তের সংখ্যা বেশি। যথেষ্ট উপযুক্ত প্রার্থী থাকা সত্ত্বেও রাজ্য সরকার কেন প্রশিক্ষণহীনদের পরীক্ষায় বসতে দেওয়া ও নিয়োগ করার বিষয়ে এত জোরাজুরি করছে তা নিয়ে আদালতেও রাজ্য সরকারকে বহু বার প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানিতে বিচারপতি সি এস কারনান এই একই প্রশ্ন করেন ও রাজ্য কোনও ভাবে কেন্দ্রকে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করছে কিনা সেই বিষয়েও প্রশ্ন করেন। শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে রাজ্য সরকারকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে নির্দেশ দেন বিচারপতি কারনান।

এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে চলতি মাসের ২৬ তারিখে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here