BJP TMC
ছবি: এনবিলাইভ থেকে

ওয়েবডেস্ক: ইটাহারে তৃণমূল নেতা খুনের অপরাধ স্বীকার করে নেওয়া দলীয় নেতার কোনো দায় নেবে না বিজেপি। অভিযুক্ত ব্যক্তিগত কারণের কথা কবুল করে নেওয়ায় ঘটনার সঙ্গে দলীয় সম্পর্ক না থাকার বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে বলেই বিজেপির এই সিদ্ধান্ত।

সালিশিসভায় তার বিরুদ্ধে নিদান দেওয়ার আক্রোশেই তৃণমূল নেতা বিকাশ মজুমদারকে খুন করেছিল বিজেপির ইটাহার ২৫ নম্বর মণ্ডলের বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি বলে পরিচিত সুবীর স্বর্ণকার। এক সপ্তাহ আগে ওই খুনের ঘটনার কথা নিজেই কবুল করে নিয়ে সুবীর পুলিশকে জানায়, একটি গাড়িকে কেন্দ্র করেই বিবাদের সূত্রপাত।

ওই ঘটনায় পুলিশ গ্রেফতার করেছে গাড়ির চালক প্রদীপ দেবনাথকেও। তাদের জেরা করে পুলিশ জেনেছে, ইটাহারের জনৈক ব্যক্তির কাছ থেকে সুবীর ৬০ হাজার টাকা নিয়েছিল। ধারের টাকা না মেটাতে পারায় একটি সালিশি সভায় সুবীরের গাড়ি কেড়ে নেওয়ার নিদান দিয়েছিলেন তৃণমূল নেতা বিকাশবাবু। তারপর থেকেই ক্রমশ বিকাশবাবুর উপর রাগ বাড়তে থাকে সুবীরের। যার পরিণতিতে  ঠান্ডা মাথায় তাঁকে খুনের পরিকল্পনা করে সুবীর। সেই কাজে সে সফলও হয়।


আরও পড়ুন: সোনালি বেন্দ্রের ‘মৃত্যু’ গুজব রটিয়ে টুইটারে শোকপ্রকাশ করার পর ক্ষমা চাইলেন বিজেপি বিধায়ক

বিজেপির উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তী বলেন, ‘সুবীর আমাদের দলের বা যুব মোর্চার কোনো পদে ছিলেন না। যদিও তিনি দলের এক জন সক্রিয় কর্মী ছিলেন। কিন্তু তিনি যদি ব্যক্তিগত স্তরে কোনও খুন বা গন্ডগোলের মধ্যে জড়িয়ে থাকেম, তবে সে সবের দায় দল কেন নিতে যাবে।’

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন