কলকাতা: জেলাশাসকের পর এ বার ভূমি সংস্কার দফতরের দুই আধিকারিকের ওপরে কোপ পড়ল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুরুলিয়া জেলাসফরের পর। জেলার বলরামপুর এবং হুড়ার ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতরের দুই আধিকারিক (বিএলআরও)-কে বদলি করল নবান্ন। ওই দুই আধিকারিকে উত্তরবঙ্গে বদলি করা হয়েছে বলে প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে।

পুরুলিয়ার হুড়া ব্লকের বিএলআরও অনুপম ভট্টাচার্যকে উত্তর দিনাজপুরে বদলি করা হয়েছে। পাশাপাশি বলরামপুর ব্লকের বিএলআরও সজল মালাকারকে কোচবিহারে বদলি করা হয়েছে। ১০ জুনের মধ্যেই ওই পদে দায়িত্ব গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নবান্ন থেকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি পুরুলিয়ায় প্রশাসনিক বৈঠকে গিয়েছিলেন মমতা। বৈঠকে বলরামপুর এবং হুড়ার ভূমি এবং ভূমি সংস্কার দফতর নিয়ে একাধিক অভিযোগ। সেখানে জমির চরিত্র বদল (মিউটেশন) করতে গিয়ে হেনস্থা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠে। দফতরের বিরুদ্ধে ওঠে দালালরাজ চালানোর অভিযোগ।

পাশাপাশি হুড়া এলাকায় তফসিলি জাতি এবং তফসিলি উপজাতিদের জমি সাধারণ শ্রেণিভুক্তের নামে রেকর্ড হয়ে যাওয়ার অভিযোগও ছিল। অভিযোগকারীদের মঞ্চে ডেকে বিষয়টি জানেন মুখ্যমন্ত্রী। এর পর ধমকও দেন ওই দুই আধিকারিককে। তিনি ধমক দেন পুরুলিয়ার জেলাশাসক রাহুল মজুমদারকেও।

এর পরেই রাহুলকে জেলাশাসক পদ থেকে সরিয়ে সম্প্রতি বদলি করা হয়েছে আসানসোল-দুর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদের সিইও এবং আসানসোল পুরনিগমের কমিশনার পদে। এ বার সরানো হল ওই দুই বিএলআরওকে।

আরও পড়তে পারেন:

‘শিক্ষিত বেকার তৈরি হল’, মাধ্যমিকের ফলপ্রকাশের পর দিনই বিস্ফোরক শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়

বৈদ্যুতিক যন্ত্র তৈরির কারখানার বিস্ফোরণ উত্তরপ্রদেশে, মৃত ৯

উত্তরবঙ্গে পৌঁছে গেলেও দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা ভাগ্য ঝুলেই রয়েছে

নবীন পট্টনায়কের নির্দেশে ওড়িশার গোটা মন্ত্রীসভার ইস্তফা

মায়ের কোল থেকে ছিনিয়ে শিশুকন্যাকে আছড়ে খুন! রাজারহাটে গ্রেফতার কাকিমা

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন