jute mill

শোভন সাহা, বীজপুর: দলের ‘ক্যাপ্টেন’ জার্সি বদলে ফেলেছেন। স্বাভাবিক ভাবেই সতীর্থদের মধ্যে শুরু হয়েছে আগে ‘গোল’ করার প্রতিযোগিতা। উত্তর ২৪ পরগনার হাজিনগরে হুকুমচাঁদ জুট মিলে শাসক দলের শ্রমিক সংগঠনের রাশ হাতে নেওয়া নিয়ে শুরু হয়েছে তেমনই এক প্রতিযোগিতা। যেখানে রেফারির ভূমিকা নিতে হচ্ছে খোদ ‘কালীঘাট’কেই।

তিন মাস আগে কমিটির আমূল পরিবর্তনের পর ফের ক্ষমতার রদবদল হল হুকুমচাঁদ জুটমিলের শ্রমিক সংগঠনে। গত ২৭ মে হাজিনগরের এই জুটমিলে শ্রমিক সংগঠনের নতুন কমিটির নাম পাঠানো হয়েছে তিলজলার তৃণমূল ভবন থেকে। নতুন এই কমিটির চিফ অ্যাডভাইজার (মুখ্য উপদেষ্টা) পদে বসানো হয়েছে নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিককে। অ্যাডভাইজার পদে হালিশহর ও নৈহাটির দুই পুরপ্রধান অংশুমান রায় এবং অশোক চট্টোপাধ্যায়কে। বাকি পদগুলিতেও হয়েছে আমূল পরিবর্তন। অথচ গত তিন মাস আগেই এই জুটমিলের শ্রমিক সংগঠনের পুরোনো কমিটি নিয়ে সব থেকে বেশি যিনি কসরত করেছিলেন, সেই ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিংয়ের নাম ছাঁটাই হয়েছে এই নতুন তালিকা থেকে। ঠিক কী কারণে?

শ্রমিক সংগঠনের নবনির্বাচিত কমিটির এক সদস্যের কথায়, এই জুটমিলের শ্রমিক সংগঠনের পুরো ব্যাপারটাই দেখাশোনা করতেন প্রাক্তন তৃণমূল নেতা মুকুল রায়। তিনি দল বদল করার পর যে শূন্যস্থানের সৃষ্টি হয়, তা পূরণের চেষ্টা করেন স্থানীয় বীজপুরের বিধায়ক তথা মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশু রায়। কিন্তু বাস্তবিক ভাবে তাঁর এখন বিধি বাম। তিনি তৃণমূলের বিধায়ক বটে, কিন্তু এলাকার দলীয় নিয়ন্ত্রণ নিয়ে চলছে তৃণমূলেরই একাংশের জোর লড়াই। ভাটপাড়া থেকে অর্জুন সিং ছুটে এসেছিলেন হুকুমচাঁদে। তিন মাস আগে তিনি পুরোনো কমিটি ভেঙে দেন। মুকুল-পুত্রকেও হঠিয়ে দেওয়া হয় কমিটি থেকে। তৈরি করেন নিজের মনের মতো কমিটি। মনের মতো এই কারণেই যে, তাঁর তৈরি কমিটির চিফ অ্যাডভাইজার ছিলেন তিনি নিজেই।

জানা গিয়েছে, অর্জুনের এমন তুঘলকি কর্মকাণ্ডে ধৈর্য হারান এলাকার দীর্ঘ দিনের শ্রমিক নেতারা। অর্জুন এই মিলের শ্রমিক সংগঠনের ঠিক কোন কোন উন্নতিসাধনে পরিশ্রম করছেন, তা জানার চেষ্টা করেন তাঁরা। কিন্তু তাঁদের অনুসন্ধানে শ্রমিকস্বার্থ রক্ষার তেমন কোনো বিষয় উঠে আসেনি বলেই পুরোনো নেতাদের দাবি। স্বভাবতই ওই শ্রমিক নেতারা দৌড়োন কালীঘাটে তৃণমূলনেত্রীর বাড়িতে। সেখানে গিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে বিষয়টি তুলে ধরেন। এমনটাও শোনা যাচ্ছে, বিধায়ক শুভ্রাংশু এত সহজে জমি ছেড়ে দিতে নারাজ।

কয়েক সপ্তাহ পরেই তৃণমূল ভবন থেকে শ্রমিক সংগঠনের নতুন কমিটির নামের তালিকা পাঠানো হলে দেখা যায়, জিতলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘কাছের নেতা’ হয়ে ওঠা পার্থ ভৌমিক। তবে পার্থবাবু জানিয়েছেন, “নতুন কমিটি তৈরি হয়েছে বলে শুনেছি। কিন্তু এ ব্যাপারে কোনো চিঠি পাইনি”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here