কলকাতা: ‘উৎকর্ষ বাংলা’ (Utkarsh Bangla) প্রকল্পের আওতায় যাঁরা কারিগরি শিক্ষার কোর্সে সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছেন, তাঁদের হাতে সোমবার নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের কারিগরি শিক্ষা প্রশিক্ষণ বিভাগের উদ্যোগে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

এ দিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আজ থেকে আরও নিয়োগপত্র যাচ্ছে। উৎকর্ষ বাংলার লোগো দেওয়া নিয়োগপত্র যাচ্ছে। আজ ১১ হাজার নিয়োগপত্র দেওয়া হচ্ছে। ১৫ তারিখ খড়গপুরে আরও ৭ হাজার নিয়োগপত্র দেওয়া হবে। একইসঙ্গে মুর্শিদাবাদ, মালদহ, বীরভূম, বর্ধমান, দুর্গাপুর, শিলিগুড়িতেও এই রকম অনুষ্ঠান করা হবে। প্রায় ৩০ হাজারের বেশি ছেলেমেয়ের হাতে এই নিয়োগপত্র তুলে দেওয়া হবে”।

গত বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলের কর্মসূচির মঞ্চ থেকেই এই নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা। সব মিলিয়ে ৩০৭৬২ জনকে চাকরির নিয়োগপত্র দেওয়া হচ্ছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

কেন স্কিলে জোর দেওয়া হচ্ছে প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আজকাল সবকিছুই বাইরে থেকে অর্ডার করতে হয়। বাড়িতে খাবার খাবে সেটা হোম ডেলিভারি পাওয়া যাচ্ছে। বাড়িতে জিনিস তৈরি করে বিক্রি করছেন। হোম ট্যুরিজমের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। এই ধরনের প্রচুর কাজের সুযোগ রয়েছে। এই বছর প্রথম সাড়ে ৪ থেকে ৫ লক্ষ স্কুলের জামাকাপড় স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মেয়েরা তৈরি করছেন। অথবা দর্জিদের অর্ডার দেওয়া হয়েছে। এতদিন এই জামাকাপড় বাইরে থেকে আসত। অর্থাৎ সরাসরি কর্মসংস্থান তৈরি হয়ে যাচ্ছে। তিন বছর করে অর্ডার পাচ্ছেন তাঁরা। একইসঙ্গে বন্যা, পুজো, ঈদের শাড়ি তাঁতিদের অর্ডার দেওয়া হয়েছে। ৩ বছরের গ্যারান্টি। তাঁরা আজকে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছে”।

এ দিনের মঞ্চ থেকে তিনি আরও বলেন, “বাংলা বিশ্বের সেরা। এখানকার ছেলেমেয়েরা রাজ্যকে গর্বিত করেছে। গোল একমাত্র বাংলাই দেবে। বাংলাই গোল দেওয়ার ক্ষমতা থাকে”।

তাঁর কথায়, “আমার টার্গেট কর্মসংস্থান। দেশে যখন ৪৫ শতাংশ কর্মসংস্থানের হার কমেছে। তখন এ রাজ্যে ৪০ শতাংশ বেড়েছে। এই স্কিলের আওতায় কয়েক লক্ষ ছেলেমেয়ের চাকরির জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ৪০ শতাংশ দারিদ্রতাও দূরীকরণ হয়েছে বাংলায়। কিন্তু, কতগুলো লোক তা চায় না। গন্ডগোল করে বেড়াচ্ছে। শুধু এজেন্সি রাজ চালাচ্ছে। কোনো উন্নয়ন নেই”।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন