কালিয়াগঞ্জ: সম্মানের লড়াই তৃণমূল-বিজেপিতে, আসন দখলে রাখতে মরিয়া বাম-কংগ্রেস

0

ওয়েবডেস্ক: মাঝে আর মাত্র দশ দিন। কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে তিন পক্ষই। কালিয়াগঞ্জ শহরের পাড়ায় পাড়ায় এবং পার্শ্ববর্তী গ্রামাঞ্চলে জোরকদমে প্রচার চালাচ্ছে বাম-কংগ্রেস, তৃণমূল এবং বিজেপি। দোরে দোরে ঘুরছেন তিন পক্ষের প্রার্থীরা। এখন দলের হেভিওয়েট নেতাদের নিয়ে এসে প্রচারে আরও জোর আনতে চাইছে তারা।

রাজ্যের আরও দু’টি কেন্দ্র খড়গপুর এবং করিমপুরের সঙ্গে কালিয়াগঞ্জেরও ভোট ২৫ নভেম্বর। কালিয়াগঞ্জ (সংরক্ষিত) কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে কালিয়াগঞ্জ মিউনিসিপ্যালিটি, কালিয়াগঞ্জ কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট ব্লক, এবং রায়গঞ্জ কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট ব্লকের বরুয়া এবং বীরঘাই গ্রাম পঞ্চায়েত।

কালিয়াগঞ্জ বরাবরই কংগ্রেস আর সিপিআই (এম)-কেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে জিতিয়েছে। ১৯৬২ সাল থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত কালিয়াগঞ্জ কেন্দ্রটি কংগ্রেসের দখলে ছিল। ১৯৮৭-তে সিপিআই (এম)-এর দখলে চলে যায়। ১৯৯১-তেও তাদেরই দখলে থাকে। পরবর্তী দু’টি নির্বাচনে অর্থাৎ ১৯৯৬ এবং ২০০১-এ কালিয়াগঞ্জ আবার রায় দেয় কংগ্রেসের পক্ষে। ২০০৬-এর নির্বাচনে আসনটি ফের ছিনিয়ে নেয় সিপিআই (এম)। ২০১১-এর আবার আসনটি দখল করে নেয় কংগ্রেস।

২০১৬ সালের নির্বাচনে কংগ্রেস প্রার্থী এবং বিধায়ক প্রমথনাথ রায় তৃণমূলের বসন্ত রায়কে ৪৬৬০২ ভোটে হারিয়ে কেন্দ্রটি পুনর্দখল করেন। সে বার প্রমথবাবু বাম-কংগ্রেস জোটের প্রার্থী ছিলেন। প্রমথবাবুর মৃত্যুর ফলে কালিয়াগঞ্জে উপনির্বাচন হচ্ছে।

আরও পড়ুন: এ বার ভাঙন সিপিএমে! ভোটের মুখে করিমপুরে দলবদল

তৃণমূল আর বিজেপির কাছে এই আসন সম্মানের লড়াইয়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। কারণ গত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের থেকে প্রায় ৫৭ হাজার ভোটে এগিয়েছিল বিজেপি। এই কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৬৯ হাজার ৬৬৯ জন। তাই ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই আসন দখল করতে মরিয়া তৃণমূল। বিজেপি যে তাদের কাছে কোনো চ্যালেঞ্জ নয় সেটা প্রমাণ করতে বদ্ধপরিকর তারা। তাই এখানে মাটি কামড়ে পড়ে রয়েছেন জেলা পর্যবেক্ষক তথা রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দুবাবু বুধবারই বুথ কমিটি নিয়ে সভা করেছেন। এর পর তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তপন দেব সিংহের প্রচারে আসতে পারেন দলের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত বক্সী, কোচবিহারের প্রাক্তন সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়, সাংসদ মহুয়া মৈত্র প্রমুখ।

এ দিকে বিজেপিরও কাছেও এটা একটা বড়ো লড়াই। ২০২১-এর নির্বাচনে তারা রাজ্যে তৃণমূলের সামনে বড়ো চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারবে কিনা তা প্রমাণ হয়ে যাবে কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচনে। তাই তারাও তেড়েফুঁড়ে লেগেছে। ইতিমধ্যে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ বুথভিত্তিক কর্মীসভা করে বেড়াচ্ছেন। দলের সর্ব ভারতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহাও প্রচারে যোগ দিয়েছেন। শোনা যাচ্ছে, লকেট চট্টোপাধ্যায়, কৈলাস বিজয়বর্গীয় প্রমুখ দলের হেভিওয়েট নেতারাও আসছেন কালিয়াগঞ্জে। ইতিমধ্যেই দলের প্রার্থী কমল চন্দ্র সরকারের হয়ে প্রচারে নেমে পড়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী।

পিছিয়ে নেই বাম-কংগ্রেস জোট। বড়ো বড়ো সভার বদলে তারা অবশ্য জোর দিচ্ছে ছোটো ছোটো স্থানীয় মিটিং- এ।জানা গিয়েছে, প্রাক্তন সাংসদ দীপা দাসমুনশি জোট প্রার্থী ধীতশ্রী রায়ের হয়ে প্রচারে নামবেন। এ ছাড়াও কংগ্রেসের সংসদীয় দলনেতা অধীর চৌধুরী, সিপিআইএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র, পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম জোট প্রার্থীর সমর্থনে প্রচারে নামবেন বলে সূত্রের খবর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.