Connect with us

উঃ দিনাজপুর

কালিয়াগঞ্জ: সম্মানের লড়াই তৃণমূল-বিজেপিতে, আসন দখলে রাখতে মরিয়া বাম-কংগ্রেস

ওয়েবডেস্ক: মাঝে আর মাত্র দশ দিন। কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে তিন পক্ষই। কালিয়াগঞ্জ শহরের পাড়ায় পাড়ায় এবং পার্শ্ববর্তী গ্রামাঞ্চলে জোরকদমে প্রচার চালাচ্ছে বাম-কংগ্রেস, তৃণমূল এবং বিজেপি। দোরে দোরে ঘুরছেন তিন পক্ষের প্রার্থীরা। এখন দলের হেভিওয়েট নেতাদের নিয়ে এসে প্রচারে আরও জোর আনতে চাইছে তারা।

রাজ্যের আরও দু’টি কেন্দ্র খড়গপুর এবং করিমপুরের সঙ্গে কালিয়াগঞ্জেরও ভোট ২৫ নভেম্বর। কালিয়াগঞ্জ (সংরক্ষিত) কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে কালিয়াগঞ্জ মিউনিসিপ্যালিটি, কালিয়াগঞ্জ কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট ব্লক, এবং রায়গঞ্জ কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট ব্লকের বরুয়া এবং বীরঘাই গ্রাম পঞ্চায়েত।

কালিয়াগঞ্জ বরাবরই কংগ্রেস আর সিপিআই (এম)-কেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে জিতিয়েছে। ১৯৬২ সাল থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত কালিয়াগঞ্জ কেন্দ্রটি কংগ্রেসের দখলে ছিল। ১৯৮৭-তে সিপিআই (এম)-এর দখলে চলে যায়। ১৯৯১-তেও তাদেরই দখলে থাকে। পরবর্তী দু’টি নির্বাচনে অর্থাৎ ১৯৯৬ এবং ২০০১-এ কালিয়াগঞ্জ আবার রায় দেয় কংগ্রেসের পক্ষে। ২০০৬-এর নির্বাচনে আসনটি ফের ছিনিয়ে নেয় সিপিআই (এম)। ২০১১-এর আবার আসনটি দখল করে নেয় কংগ্রেস।

২০১৬ সালের নির্বাচনে কংগ্রেস প্রার্থী এবং বিধায়ক প্রমথনাথ রায় তৃণমূলের বসন্ত রায়কে ৪৬৬০২ ভোটে হারিয়ে কেন্দ্রটি পুনর্দখল করেন। সে বার প্রমথবাবু বাম-কংগ্রেস জোটের প্রার্থী ছিলেন। প্রমথবাবুর মৃত্যুর ফলে কালিয়াগঞ্জে উপনির্বাচন হচ্ছে।

আরও পড়ুন: এ বার ভাঙন সিপিএমে! ভোটের মুখে করিমপুরে দলবদল

তৃণমূল আর বিজেপির কাছে এই আসন সম্মানের লড়াইয়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। কারণ গত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের থেকে প্রায় ৫৭ হাজার ভোটে এগিয়েছিল বিজেপি। এই কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৬৯ হাজার ৬৬৯ জন। তাই ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই আসন দখল করতে মরিয়া তৃণমূল। বিজেপি যে তাদের কাছে কোনো চ্যালেঞ্জ নয় সেটা প্রমাণ করতে বদ্ধপরিকর তারা। তাই এখানে মাটি কামড়ে পড়ে রয়েছেন জেলা পর্যবেক্ষক তথা রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দুবাবু বুধবারই বুথ কমিটি নিয়ে সভা করেছেন। এর পর তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তপন দেব সিংহের প্রচারে আসতে পারেন দলের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত বক্সী, কোচবিহারের প্রাক্তন সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়, সাংসদ মহুয়া মৈত্র প্রমুখ।

এ দিকে বিজেপিরও কাছেও এটা একটা বড়ো লড়াই। ২০২১-এর নির্বাচনে তারা রাজ্যে তৃণমূলের সামনে বড়ো চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারবে কিনা তা প্রমাণ হয়ে যাবে কালিয়াগঞ্জ উপনির্বাচনে। তাই তারাও তেড়েফুঁড়ে লেগেছে। ইতিমধ্যে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ বুথভিত্তিক কর্মীসভা করে বেড়াচ্ছেন। দলের সর্ব ভারতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহাও প্রচারে যোগ দিয়েছেন। শোনা যাচ্ছে, লকেট চট্টোপাধ্যায়, কৈলাস বিজয়বর্গীয় প্রমুখ দলের হেভিওয়েট নেতারাও আসছেন কালিয়াগঞ্জে। ইতিমধ্যেই দলের প্রার্থী কমল চন্দ্র সরকারের হয়ে প্রচারে নেমে পড়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী।

পিছিয়ে নেই বাম-কংগ্রেস জোট। বড়ো বড়ো সভার বদলে তারা অবশ্য জোর দিচ্ছে ছোটো ছোটো স্থানীয় মিটিং- এ।জানা গিয়েছে, প্রাক্তন সাংসদ দীপা দাসমুনশি জোট প্রার্থী ধীতশ্রী রায়ের হয়ে প্রচারে নামবেন। এ ছাড়াও কংগ্রেসের সংসদীয় দলনেতা অধীর চৌধুরী, সিপিআইএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র, পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম জোট প্রার্থীর সমর্থনে প্রচারে নামবেন বলে সূত্রের খবর।

উঃ দিনাজপুর

বিজেপি বিধায়কের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি খুন

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, “এই খুনের পেছনে তৃণমূল রয়েছে। ওরাই খুন করে দেহকে এমন ভাবে ঝুলিয়ে দিয়েছে যাতে মনে হয় এটা আত্মহত্যা।

রায়গঞ্জ: রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হল উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের (Hemtabad) বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের (Debendranath Roy)। সোমবার সকালে একটি চায়ের দোকান থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

রায়গঞ্জের (Raiganj) বিন্দোল পঞ্চায়েতের বালিয়া গ্রামে তাঁর আদি বাড়ি। সেখান থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে রাস্তার ধারে অবস্থিত ওই চায়ের দোকানটি। পরিবারের দাবি, খুন করা হয়েছে বিধায়ককে। ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবিও জানিয়েছেন তাঁরা। একই দাবি বিজেপিরও।

রবিবার সন্ধ্যায় আদি বাড়িতে ফিরেছিলেন তিনি। পরিবারের দাবি, রাত একটা নাগাদ বেশ কয়েক জন যুবক তাঁকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। তার পর রাতভর তাঁর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

সোমবার সকালে খোঁজাখুঁজি শুরু হয় ওই বিধায়কের। তখনই ওই চায়ের দোকানটি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর দেহ উদ্ধার হয়। চায়ের দোকানটি বন্ধ ছিল।

পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। যদিও খুন না আত্মহত্যা, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত হতে পারছে না পুলিশ। আপাতত ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে আসার অপেক্ষা।

রায়গঞ্জের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী এই বিষয় বলেন, “দেবেনবাবুর মৃত্যু যথেষ্ট সন্দেহজনক। একজন মানুষ হাত বাঁধা অবস্থায় কখনোই আত্মহত্যা করতে পারেন না। সকলেই সন্দেহ করছে। পুলিশ সঠিক তদন্ত করে মৃত্যুর কারণ বের করুক।” 

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, “এই খুনের পেছনে তৃণমূল রয়েছে। ওরাই খুন করে দেহকে এমন ভাবে ঝুলিয়ে দিয়েছে যাতে মনে হয় এটা আত্মহত্যা। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আমার অনুরোধ, দয়া করে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিন।”

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনে হেমতাবাদ কেন্দ্র থেকে সিপিএমের টিকিটে জয়লাভ করেন দেবেন্দ্রনাথ রায়। বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতে পর পর তিন বার সিপিএমের প্রধান ছিলেন তিনি। ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের পর দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন তিনি।

Continue Reading

উঃ দিনাজপুর

করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হুগলির, গ্রিন জোনের তকমা ঘুচল আরও দুই জেলার

খবর অনলাইনডেস্ক: পরিযায়ী শ্রমিকদের নিজেদের বাড়ি ফিরে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র। এর পর বিভিন্ন রাজ্যের করোনারোগীর সংখ্যা যে আরও বেশ কিছুটা বৃদ্ধি পাবে তা আন্দাজ করাই হচ্ছিল। ঠিক সে ভাবেই গ্রিন জোনের তকমা ঘুচল পশ্চিমবঙ্গের আরও দুই জেলার। অন্য দিকে করোনা পরিস্থিতি ঘোরালো হয়ে উঠল হুগলির (Hugli)।

রবিবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর যে বুলেটিন প্রকাশ করে তাতে দেখা যায় করোনা সংক্রমণের তালিকায় এ বার নাম লিখিয়েছে উত্তর দিনাজপুর (Uttar Dinajpur) আর ঝাড়গ্রাম (Jhargram) জেলাও। দুই জেলাতেই আক্রান্ত তিন জন করে।

সূত্রের খবর, দুই জেলার আক্রান্তরাই কিছু দিন আগেই জেলায় ফিরেছেন, কেউ দিল্লি থেকে বা কেউ কলকাতা থেকে। ফলে পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে দিয়ে সংক্রমণ বাড়ার ব্যাপারটি বাস্তব রূপ নিচ্ছে। যদিও, বিভিন্ন জেলার সীমান্তেই কড়া নজরদারি চালাচ্ছে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন। সন্দেহভাজনদের দেখলেই কোয়ারান্টাইন কেন্দ্র পাঠানো হচ্ছে। ফলে উত্তর দিনাজপুর আর ঝাড়গ্রামের আক্রান্তদের মধ্যে দিয়ে সংক্রমণ বিশেষ ছড়াবে না বলেই আশা করছে প্রশাসন।

তবে এখন প্রশাসনের চিন্তার ব্যাপারটি হল বাস চলাচলের কী হবে। শুক্রবার থেকে উত্তর দিনাজপুরে বাছাই করা কিছু রুটে বাস চলাচল শুরু হয়েছে। অন্য দিকে সোমবার থেকে ঝাড়গ্রামেও বাস চলাচল শুরু হওয়ার কথা ছিল।

এখনও সরকারি ভাবে অরেঞ্জ জোনে আসেনি এই দুই জেলা। ফলে বাস চলাচলের ব্যাপারে স্পষ্ট করে কোনো নির্দেশিকাও আসেনি।

এ দিকে হুগলির পরিস্থিতি ক্রমশ উদ্বেগজনক হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় হুগলিতে আক্রান্তের সংখ্যা সব থেকে বেশি। কলকাতায় যেখানে নতুন করে ৩৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, সেখানে হুগলিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯।

সূত্রের খবর চন্দননগরের (Chandannagar) নির্দিষ্ট একটি জায়গা থেকে অধিকাংশ আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। চন্দননগর পুরসভার ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ড সংলগ্ন উর্দিবাজার এলাকার পরিস্থিতি গুরুতর হয়ে উঠছে। ওই অঞ্চলে স্থানীয় সংক্রমণ শুরু হয়ে গিয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

এর আগে হুগলির ডানকুনি, শ্রীরামপুর, রিষড়া, আরামবাগ থেকেও কোভিড ১৯ রোগীর সন্ধান মিলেছিল। কিন্তু কোনো জায়গাতেই সংক্রমণ ব্যাপক হারে ছড়ায়নি, যেটা চন্দননগরের ক্ষেত্রে হচ্ছে। উর্দিবাজার এলাকা সিল করে দিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। কিন্তু তার পরেও এক শ্রেণির মানুষের মধ্যে কোনো সচেতনতা দেখা যায়নি। তাঁরা বাইরে বেরিয়েছিলেন পুলিশি নিষেধাজ্ঞা অবজ্ঞা করে।

এর পর শনিবার ওই এলাকার প্রবেশপথগুলিতে টিন লাগানোর পাশাপাশি প্লাইউড দিয়ে আটকে দেওয়া হয়েছে যাতে আর কেউ না বেরোতে পারেন ওই এলাকা থেকে। সব মিলিয়ে উর্দিবাজার এলাকায় এখন যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি।

Continue Reading

উঃ দিনাজপুর

বাংলায় বসবাসকারী সমস্ত বাংলাদেশিই ভারতীয়, দাবি মমতার

কালিয়াগঞ্জ: নাগরিকত্ব ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ফের একবার তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার কালিয়াগঞ্জের সভা থেকে তিনি স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, কেন্দ্র যাই বলুক, “বাংলায় বসবাসকারী বাংলাদেশিরা ভারতীয়-ই”।

দিল্লির সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনায় প্রায় ৪২ জনের (কারও কারও মতে ৪৬ জন) মৃত্যু দায় কেন্দ্রের মোদী সরকারের কাঁধে চাপিয়ে মমতা বলেন, তিনি কোনো মতেই পশ্চিমবঙ্গে আর একটা দিল্লিতে পরিণত হতে দেবেন না।

উপচে পড়া জনসভায় দাঁড়িয় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “যাঁরা বাংলাদেশ থেকে এসেছেন, তাঁরা প্রত্যেকেই ভারতীয় নাগরিক…তাঁরা ইতিমধ্যেই নাগরিকত্ব পেয়ে গিয়েছেন। আপনাদের আর নতুন করে নাগরিকত্বের আবেদন করতে হবে না। আপনারা নির্বাচনে নিজের ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী গড়ে দেন…আর এখন তাঁরাই বলছেন, আপনারা নাগরিক নন…তাঁদের এ ধরনের কথায় বিশ্বাস করবেন না”।

একই সঙ্গে তিনি আশ্বস্থ করে বলেন, কোনো একজনকেও তিনি বাংলা থেকে বিতাড়িত হতে দেবেন না। বাংলায় বসবাসকারী কোনো আশ্রয়প্রার্থীকে নিজের নাগরিকত্ব হারাতে হবে না।

দিল্লির হিংসার ঘটনাকে সামনে রেখে কেন্দ্রের শাসকদলের উদ্দেশে মমতা বলেন, “ভুলে যাবেন না, এটা বাংলা। দিল্লিতে যা ঘটেছিল, সেটা আমরা এখানে মোটেই ঘটতে দেব না। আমরা বাংলাকে আর একটা দিল্লি অথবা উত্তরপ্রদেশ হতে দেব না”।

দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়ের মতো বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে বিধানসভায় লড়াই নয় তৃণমূলের!

তবে বিজেপি অবশ্য মমতার বিরুদ্ধে ‘সংখ্যালঘু তোষণে’র অভিযোগ তুলে আসছে। তাদের অভিযোগ, ‘ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি’র জন্যই এ সব বলছেন মুখ্যমন্ত্রী!

Continue Reading
Advertisement
প্রযুক্তি1 hour ago

‘মেড ইন ইন্ডিয়া’, টিকটকের পাল্টা ‘জোশ’ অ্যাপ এল বাজারে

রাজ্য2 hours ago

মৃত্যুহার কমে ৩ শতাংশে, রাজ্যে নতুন আক্রান্তের সংখ্যাও কিছুটা কমল

ক্রিকেট4 hours ago

ন্যাটওয়েস্ট ফাইনালের ১৮ বছর, টুইটে নাসির হুসেনকে ট্রোল যুবরাজের, জবাবে নাসির যা বললেন…

বিদেশ4 hours ago

প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কবলে নেপাল, ভূমিধসে মৃত ৬০

রাজ্য5 hours ago

বিধায়ক-মৃত্যুতে সিআইডিকে তদন্তভার রাজ্যের, উত্তরবঙ্গে বন্‌ধ ডাকল বিজেপি

cbse class X result
দেশ5 hours ago

সিবিএসইর দ্বাদশ শ্রেণির ফলাফল প্রকাশিত, নেই মেধাতালিকা

দেশ5 hours ago

শক্তিপ্রদর্শন গহলৌত শিবিরের, বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তাব

football2
ফুটবল11 hours ago

কোভিড-পরিস্থিতিতে আসন্ন আই লিগের সব ম্যাচই কলকাতায় করার ভাবনা

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা6 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

নজরে