এক সময়ের ‘ত্রাস’ বাসুদেব ভকতের ‘বাংলার চম্বল’ ভুগছে পানীয় জলের সংকটে

0
441

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝাড়গ্রাম: বাম আমলে দাপুটে নেতা বাসুদেব ভকতের নাম শুনলে অনেকেরই গায়ে কাঁটা দিত। নিরবচ্ছিন্ন সন্ত্রাসের আবহে জামবনির ডাকনাম তখন হয়ে যায় ‘বাংলার চম্বল’। এ রকমই একটি পঞ্চায়েত ভোটপর্বে দুষ্কৃতীদের হাতে প্রাণ যায় তাঁর। ঝাড়খণ্ড সীমানাবর্তী জঙ্গল অধ্যুষিত জামবনি ৯ নম্বর কেন্দডাংরি অঞ্চলের পড়শুলি গ্রামটি ছিল বাসুদেবের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকা। এখন এই গ্রাম ভুগছে পানীয় জলের চরম সংকটে।

নজরে জামবনি ব্লক

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই অঞ্চলেও তৃণমূলের ‘পরিবর্তন’ প্রতিষ্ঠিত হয়। বলা যেতে পারে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। এই নির্বাচনে ‘তুল্যমূল্য’ প্রার্থী দিয়েছে বিজেপি। গত পাঁচ বছরের উন্নয়নে পানীয় জলের সংকট দূর করা সম্ভব হয়নি! স্থানীয় বাসিন্দাদের কথায়, বর্ধিষ্ণু গ্রাম । গ্রামের প্রান্তে পাম্প বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। গোটা গ্রামে পানীয় জল আসে না। চার পাশের চাষের জমিতে শ্যালো  চলার ফলে জলস্তর নীচে নেমে এই পাম্পে জল ওঠে না। বৃষ্টি হলে তা স্বাভাবিক হয়। গত বছর তীব্র জল সংকটে পড়েছিল গোটা গ্রাম। তার উপর রয়েছে হামেশাই লোডশেডিং। এক দিন লোডশেডিং হলে তিন দিন জল বন্ধ থাকে।

jhargram২

বিজেপির দাবি, ঝাড়গ্রামের সব ক’টি সমিতি আসনেই তুল্যমূল্য লড়াই হচ্ছে এই নির্বাচনে। জামবনি তার ব্যতিক্রম নয়। তবে এই এলাকার চিল্কিগড় পঞ্চায়েত সমিতির ১৫ নম্বর আসনে বিরোধীরা প্রার্থী দিতে পারেনি। কিন্তু বাকি আসনগুলিতে লড়াই হবে সমানে-সমানে।

jhargram

জামবনি ব্লকের এক তৃণমূল নেতা বলেন, সব সমস্যার সমাধান এক বারেই কী করে সম্ভব? পড়শুলি গ্রামের বড়ো সমস্যা ছিল, গ্রামের হাইস্কুলের আদিবাসী ছাত্রাবাস। তা নতুন ভাবে নির্মিত হয়েছে। গ্রামে পানীয় জলের পাম্প নির্মিত হয়েছে। পাঁচ বছরে যা গ্রামের উন্নয়ন হয়েছে, গত ২০ বছরে তা হয়নি, অল্প কিছু সমস্যার সমাধানে গ্রামবাসীদের ধৈর্য ধরতে হবে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here