west bengal tableau in republic day

কলকাতা: কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের সুর চড়ানোরই মাশুল দিতে হল বাংলাকে?

আগামী প্রজাতন্ত্র দিবসে নয়াদিল্লিতে সরকারি অনুষ্ঠান থেকে বাংলার ট্যাবলো বাদ পড়ার পর তেমনটাই প্রশ্ন উঠে আসছে। এবারে বাংলার ট্যাবলোর থিম ছিল ‘একতা ও সম্প্রীতি’। এর মধ্যে নিশ্চয় এমন কিছু আপত্তিকর বিষয় থাকার কথা নয়, যার জেরে ট্যাবলোটিকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে পারে কেন্দ্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। তা হলে ঠিক কী কারণে দেশের অন্যান্য রাজ্যগুলিকে নিয়ম মেনে অনুমতি পাঠিয়ে দেওয়া হলেও শুধু মাত্র বাদ সাধল বাংলার বেলায়।

পশ্চিমবঙ্গকে এখনও পর্যন্ত জানানো হল না কেন, প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন,বাংলাকে উপেক্ষা করা হলে মানুষই এর জবাব দেবেন। কিন্তু একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোর দেশে এ ধরনের দ্বিচারিতা প্রশ্রয় পেলে তো আগামী দিনে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।

তৃণমূলের তরফে চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য অবশ্য কোনো রাখঢাক না করেই স্পষ্টত বলেছেন, প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়েই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর ফলে শুধু তৃণমূল নয়, বাংলার মানুষে অপমান করা হয়েছে।

সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরু হওয়ার পর থেকেই তৃণমূল কংগ্রেস সরকার বিরোধিতার সুর চড়া করেছে। রাজধানীতে তাদের তরফে প্রতিদিনই ধরনা-বিক্ষোভ চলছে। যা জাতীয় রাজনৈতিক তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে। মুখে না বললেও বিজেপি যে আগামী লোকসভা নির্বাচনের কথা ভেবে যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়েছে। সব মিলিয়ে তারই বহিপ্রকাশ হয়তো দেখা গেল ট্যাবলো সিদ্ধান্তে।

উল্লেখ্য, গত ২০১৫ সালে মোদী-সরকারের প্রথম প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান থেকেও বাদ পড়েছিল বাংলার কন্যাশ্রী প্রকল্পের উপর নির্মিত ট্যাবলো। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের আপত্তির কথা জানিয়ে সে বার বাংলাকে বাদ দেওয়া হয়। এ বার ঠিক কী কারণে বাংলা বহিষ্কৃত হল, তা সরকারি ভাবে জানানো হয়নি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here