kolkata rain

ওয়েবডেস্ক: অবশেষে গোটা রাজ্যেই সক্রিয় হয়ে উঠেছে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু। তার প্রভাবে প্রবল বৃষ্টিতে কার্যত ভাসছে উত্তরবঙ্গ। অন্য দিকে দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত ভাবে হালকা বৃষ্টি হলেও, ২৪ ঘণ্টা পর থেকে তা বাড়তে পারে।

বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গের মূলত কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার প্রবল বৃষ্টি পেয়েছিল, শুক্রবার বাকি অঞ্চলেও প্রবল বৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া দফতরের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল সাড়ে আটটা পর্যন্ত উত্তরবঙ্গে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে গজোলডোবায় (২৫০ মিমি)। প্রবল বৃষ্টি হয়েছে জলপাইগুড়ি (১৯০ মিমি), হাসিমারা (১৪০ মিমি), বক্সা (১৩০ মিমি), আলিপুরদুয়ার (৯০ মিমি)-সহ উত্তরবঙ্গের কার্যত সব জায়গাতেই। তবে দার্জিলিং এবং কালিম্পং পাহাড়ে বৃষ্টির দাপট কম ছিল।

অন্য দিকে উত্তরের সঙ্গে কোনো ভাবেই দক্ষিণের তুলনা না করা গেলেও, সেখানেও ধীরে ধীরে বৃষ্টি বাড়তে শুরু করেছে। শনিবার সকালে কলকাতার বিভিন্ন অঞ্চল এবং দক্ষিণবঙ্গের বিক্ষিপ্ত কিছু অঞ্চলে হালকা বৃষ্টি হয়েছে। তবে আকাশ মেঘলা থাকায় এবং ফুরফুর দখিনা বাতাস থাকায়, তাপমাত্রা বেশি উঠতে পারেনি। আলিপুর আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হচ্ছে, রবিবার থেকে তুলনায় বৃষ্টি বাড়বে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে।

উত্তরবঙ্গে এই প্রবল বৃষ্টির কারণ কী?

বেসরকারি  আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা জানাচ্ছে, উত্তরবঙ্গ থেকে বিহার পর্যন্ত অক্ষরেখা এবং বিহারের ওপরে থাকা একটি ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে এই বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আগামী অন্তত দিন পাঁচেক এই বৃষ্টি চলবে বলে জানানো হয়েছে। উত্তরবঙ্গে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করে রেখেছে আলিপুর আবহাওয়া দফতরও। ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা জানাচ্ছেন, এই বৃষ্টি চললে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিতে পারে।

দক্ষিণের ভাগ্যে কী রয়েছে?

আলিপুর আবহাওয়া দফতর থেকে বলা হয়েছে সামনের সপ্তাহের মঙ্গল এবং বুধবার দক্ষিণবঙ্গের কিছু জায়গায় ভারী বৃষ্টি হতে পারে। তবে ওয়েদার আল্টিমা বলছে, রবিবার থেকে দক্ষিণের বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা বাড়তে পারে, বিশেষ করে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলি এবং মুর্শিদাবাদ, নদিয়ায়। ওয়েদার আল্টিমা এই প্রসঙ্গে বলছে, দক্ষিণবঙ্গের ওপরে একটি অক্ষরেখা এবং দক্ষিণ ওড়িশা উপকূলে ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে জলীয় বাষ্প ঢুকছে দক্ষিণবঙ্গে। এই জলীয় বাষ্প ঢোকার পরিমাণ আরও বাড়বে। এর ফলে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি ক্রমশ বাড়বে।

তাপপ্রবাহের দুঃসহ অতীত ভুলে সর্বোচ্চ পারদ অনেকটাই নেমে গিয়েছে কলকাতায়। তাপমাত্রা বেশি বাড়ার আর খুব একটা সম্ভাবনা নেই বলে জানানো হয়েছে ওয়েদার আল্টিমার তরফ থেকে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here