করোনার দাপট কমতেই জিম-যাত্রায় ছাড় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের, তবে টুরিস্ট স্পট এখনও বন্ধই

0

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গে, বিশেষত কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে অতি দ্রুততায় কমছে করোনার তৃতীয় ঢেউ। সে কারণে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বহাল থাকা বিধিনিষেধে আরও কিছুটা শিথিলতা দিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। জিম, যাত্রা এবং শুটিংয়ের ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হল। তবে এখনও বন্ধ টুরিস্ট স্পট।

সোমবার সন্ধ্যায় একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে নবান্ন থেকে। তাতেই আরও তিনটি ক্ষেত্রে কড়াকড়িতে ছাড় দেওয়া হল। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ৫০ শতাংশ গ্রাহক নিয়ে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা যেতে পারে জিম। তবে যে সব গ্রাহক এবং কর্মীর করোনার দু’টি টিকাই নেওয়া হয়ে গিয়েছে, শুধু তাঁদেরই ডাকা যাবে জিমে। তবে দুটি টিকা না নেওয়া হয়ে থাকে তা হলে আরটিপিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট থাকা বাধ্যতামূলক।

কোভিডবিধি মেনে সিনেমা এবং ধারাবাহিকের আউটডোর শ্যুটিংয়েও ছাড় দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফে। যাত্রার ক্ষেত্রেও ছাড় মিলেছে। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, কোভিডবিধি মাথায় রেখে ৫০ শতাংশ দর্শক নিয়ে খোলা মাঠে যাত্রানুষ্ঠান চলতে পারে রাত ৯টা পর্যন্ত। চার দেওয়ালের ভিতর যাত্রার আয়োজন হলে সর্বোচ্চ ২০০ জন দর্শক উপস্থিত থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, গত শনিবারই কোভিড বিধিনিষেধের মেয়াদ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বাড়িয়ে নবান্নের জারি করা নির্দেশিকায় বিয়েবাড়ি সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে ছাড় দেওয়া হয়েছিল। ছাড় মিলেছিল মেলা আয়োজনের ক্ষেত্রেও। এ বার আরও কিছুটা শিথিল করা হল নিষেধাজ্ঞা।

তবে এখনও বন্ধ থাকছে টুরিস্ট স্পট। এর কারণে হতাশ রাজ্যের পর্যটন ব্যবসায়ী এবং পর্যটনপ্রেমী মানুষজন। হোটেল-রিসর্ট খোলা থাকলেও টুরিস্ট স্পট বন্ধ থাকায় পর্যটক বেশি বেড়াতে যাচ্ছেন না, যার ফলে ক্ষতির মুখে পড়ছে পর্যটন শিল্প।

পর্যটন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত মানুষজন গত সপ্তাহে কলকাতা এবং উত্তরবঙ্গে দুটো পৃথক প্রতিবাদ সভারও আয়োজন করেন এবং দ্রুত টুরিস্ট স্পটগুলি খোলার দাবি জানান। তাঁদের বক্তব্য নিয়ন্ত্রিত অবস্থায় মেলা যদি চলতে পারে, তা হলে টুরিস্ট স্পট কেন খোলা যাবে না! কিন্তু এখনও সে ব্যাপারে কোনো উচ্চবাচ্য করেনি নবান্ন।

আরও পড়তে পারেন

অতি দ্রুততায় কমছে করোনার দাপট, পশ্চিমবঙ্গে সংক্রমণ ১০ হাজারের নীচে, কলকাতায় ২ হাজারের নীচে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন