করোনা সংক্রমণে বৃদ্ধি, ফের একগুচ্ছ নির্দেশিকা জারি করল পশ্চিমবঙ্গ সরকার

0
নমুনা পরীক্ষা। প্রতীকী ছবি: ইন্ডিয়া ডট কম থেকে

কলকাতা: মাস তিনেক পুরোপুরি স্তিমিত থাকার পর ফের বাড়তে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ। পশ্চিমবঙ্গে সংক্রমণের হার ইতিমধ্যেই ১৩ শতাংশ পেরিয়ে গিয়েছে। কলকাতায় করোনার দাপট অনেকটাই বেশি। এই পরিস্থিতিতে নতুন করে কিছু নির্দেশিকা জারি করল পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য দফতর।

গত তিনটে ঢেউয়ের তুলনায় চলতি করোনাস্ফীতি অনেকটাই মামুলি। সংক্রমণ হুহু করে বাড়লেও গুরুতর অসুস্থ কেউই হচ্ছেন না। বেশিরভাগ মানুষই হয় উপসর্গহীন অথবা খুব মামুলি উপসর্গে ভুগছেন। তবুও সাধারণ মানুষকে সতর্ক করার জন্য এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।

তবে অন্যবারের মতো কোনো বিধিনিষেধ আরোপ করেনি স্বাস্থ্য দফতর। নির্দেশিকায় যা বলা হয়েছে, একবার দেখে নেওয়া যাক:-

১) শুধুমাত্র উপসর্গহীন মানুষ এবং টিকার সব ডোজ নিয়ে নেওয়া মানুষজনই জনসমাবেশে যাবেন। যাঁদের কোনো রকম উপসর্গ রয়েছে, তাঁদের বাড়িতেই থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

২) টিকাকরণে জোর দিতে বলা হয়েছে। টিকার দ্বিতীয় এবং তৃতীয় তথা বুস্টার ডোজ যাতে তাড়াতাড়ি নিয়ে নেওয়া হয়, সে ব্যাপারে সচেতনতার কাজ চালানো হবে।

৩) স্বাস্থ্যকর্মী এবং প্রথমসারির করোনাযোদ্ধাদের টিকার তিনটে ডোজই নিয়ে নিতে হবে।

৪) বয়স্ক মানুষ এবং যাঁদের মধ্যে কোনো রকম কোমর্বিডিটি রয়েছে, তাঁদের দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে। বুস্টার টিকা যাতে তাঁরা নিয়ে নেন, সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৫) জনসমাবেশে থাকা মানুষজনকে কোভিডের আদর্শ আচরণবিধি পালন করতে হবে। মাস্ক পরতে হবে, শারীরিক দূরত্ববিধি যতটা সম্ভব বজায় রেখে চলতে হবে।

৬) জনসমাবেশের স্থান, বাজারহাট এবং গণপরিবহণ সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। সব সময় স্যানিটাইজ করতে হবে।

৭) শরীরের তাপমাত্রা মাপা এবং স্যানিটাইজ করার সুব্যবস্থা রাখতে হবে সব জায়গায়।

উল্লেখ্য, রাজ্যে গত দু’সপ্তাহ ধরেই বেড়েছে করোনার দাপট। তবে গত দু’দিনে তা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজ্যে নতুন করে কোভিডের আক্রান্ত হন ১ হাজার ৫২৪ জন। সংক্রমণের হার ছিল ১২.৮৯ শতাংশ। স্বস্তির খবর এই যে করোনার চলতি স্ফীতি খুবই মামুলি। সে কারণে মৃত্যু একদমই তলানিতে এসে ঠেকেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মাত্র একজনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ দৈনিক মৃত্যুহার ছিল মাত্র ০.০৬ শতাংশ।

করোনা যে এ বার মামুলি রোগে পরিণত হয়েছে সেটা রাজ্য সরকারের নির্দেশিকার প্রথম অংশটা পড়লেই বোঝা যায়। ঠিক সেই কারণেই কোনো রকম বিধিনিষেধ আরোপ করেনি রাজ্য। শুধুমাত্র কিছু সতর্কতা মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়তে পারেন

দু’ বছর পর আজ বিকেলে ঢাকার রাজপথে ফের গড়াবে ইসকনের রথের চাকা  

৫ বছরে সাংসদদের ট্রেনযাত্রার বিল ৬২ কোটি টাকা, দীর্ঘদিন ছাড়ের সুবিধা থেকে বঞ্চিত প্রবীণ নাগরিকেরা

ফড়ণবীস নন, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন শিন্ডে

তিন বছর পর জনসমাগম, রথযাত্রা উপলক্ষ্যে চূড়ান্ত প্রস্তুতি পুরীতে

চাকরির নিয়োগপত্র পেলেন ববিতা সরকার, মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতার স্কুলেই নিয়োগ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন