ola cabs

কলকাতা: হলুদ ট্যাক্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকে মিটারের থেকে বেশি ভাড়া নেওয়ার। সেখান থেকে বাঁচার জন্য সাধারণ মানুষ ওলা, উবেরের মতো অ্যাপ ক্যাবকে বেছে নিয়েছিলেন। এখন দেখা যাচ্ছে মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে ওলা, উবেরের ভাড়াও। অনেক সময়ে ট্যাক্সির ভাড়ারও দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছে ভাড়া। এই ব্যাপারে একগুচ্ছ অভিযোগ জমা পড়ার পরে অবশেষে নড়েচড়ে বসেছে রাজ্য সরকার।

ওলা, উবেরের ভাড়ায় লাগাম টানার জন্য পদক্ষেপ করতে চলেছে রাজ্য। তার প্রথম ধাপ হিসেবে ওলা, উবেরের কাছ থেকে জবাবদিহি চেয়েছে রাজ্য পরিবহণ দফতর। এই প্রসঙ্গে রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “তাদের ভাড়ার নীতি কী, এটা জানার জন্য ওলা এবং উবেরের থেকে জবাব চেয়েছি আমরা। পনেরো দিনের মধ্যে তাদের জবাব দিতে হবে। প্রায় শ’খানেক অভিযোগ জমা পড়ার পরেই আমাদের ব্যবস্থা নিতে হয়েছে।”

ওলা এবং উবের কী জবাব দেয় তার ওপর ভিত্তি করেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তবে পরিবহণমন্ত্রীর সাফ কথা, এ ভাবে অনৈতিক ভাবে ভাড়া বাড়ানোর অধিকার কারও নেই।

ওলা, উবেরের এই ভাড়া নীতির ভুক্তভোগী শৌনক মাইতি বলেন, “আমি উবেরে নিয়মিত যাতায়াত করি। এখন দেখছি যখন তখন ভাড়া বাড়িয়ে দিচ্ছে তারা। পার্ক স্ট্রিট থেকে নিউটাউন, এই পনেরো কিলোমিটার রাস্তার ভাড়া দেখাচ্ছে ৭০০ টাকা। তেলের দাম বেড়েছে আমি জানি, কিন্তু তা বলে এতটা ভাড়া বাড়বে?”

ওলা, উবেরের ভাড়া নীতির আরও এক ভুক্তভোগী শ্রয়ণ সেন বলেন, “কিছু দিন আগে ময়দান থেকে পাটুলি যাওয়ার জন্য উবের বুক করতে গিয়ে দেখলাম ভাড়া বলছে ৫০০ টাকা। তখন ট্যাক্সি করে বাড়ি এলাম। মিটারে যা হওয়া উচিত, ট্যাক্সি তার থেকে বেশিই ভাড়া নিল, কিন্তু তা-ও সেটা উবেরের থেকে অনেকটাই কম।”

শুধু ভাড়াই নয়, ট্যাক্সির মতো রিফিউজালের অভিযোগও উঠছে এই সব অ্যাপ ক্যাবের বিরুদ্ধে। যাত্রীপ্রত্যাখ্যানের রোগ এখন অ্যাপ ক্যাবেও ধরেছে, এই দেখেই সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ। তবে রাজ্যের এই চিঠির ব্যাপারে ওলা এবং উবের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা হলেও তাদের জবাব পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here