১৫ হাজারের নীচে সংক্রমণ, টেস্ট কমলেও কমল সংক্রমণের হার, কলকাতার সংখ্যায় আরও পতন

0

কলকাতা: গঙ্গাসাগর মেলার পর আশংকা ছিল রাজ্যে দ্রুতগতিতে বাড়বে করোনা সংক্রমণ। কিন্তু মেলা শেষ হওয়ার পর থেকেই ইতিবাচক পরিসংখ্যান দেখা যাচ্ছে সংক্রমণের পরিস্থিতিতে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন সংক্রমণ নামল ১৫ হাজারের নীচে। হ্যাঁ, টেস্টের সংখ্যা অনেকটাই কম ছিল এ দিন। তবে পাল্লা দিয়ে কমেছে সংক্রমণের হারও, যা প্রমাণ করে যে করোনার দাপট ধীরে ধীরে কমছে রাজ্যে। কলকাতায় নতুন সংক্রমণ এক ধাক্কায় ৪ হাজারের নীচে এসে গিয়েছে।

রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি

স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৯৩৮ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৯৯।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৯৭৩ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৭ লক্ষ ১৭ হাজার ৩০৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন মোট ২০ হাজার ৮৮ জন। রাজ্যে মৃত্যুহার রয়েছে ১.০৬ শতাংশে। কিছু দিন আগেও মৃত্যুহার ছিল ১.২১ শতাংশ।

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১ লক্ষ ৬০ হাজার ৩০৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৯২৯ জন সক্রিয় রোগী বেড়েছে রাজ্যে। রাজ্যে সুস্থতার হার রয়েছে ৯০.৪৯ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের হার আরও কমল

সংক্রমণের দাপট কতটা রয়েছে সেটা ভালো করে বুঝতে গেলে দৈনিক সংক্রমণের হারের দিকে তাকাতে হয়। প্রতি ১০০ টেস্টে কত জনের রিপোর্ট পজিটিভ হচ্ছে, সেটাকেই সংক্রমণের হার বলে।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সংক্রমণের হার আরও অনেকটাই কমেছে। এই সময়সীমায় রাজ্যে ৫৩ হাজার ৮৭৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। ফলত, এ দিন সংক্রমণের হার ছিল ২৭.৭৩ শতাংশ। শনিবার এই হারই ছিল ২৯ শতাংশের ওপরে।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণার পরিস্থিতি

কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণায় অত্যন্ত দ্রুতগতিতে সংক্রমণ কমছে। গত রবিবার কলকাতায় দৈনিক সংক্রমণ প্রায় ৯ হাজারের চূড়ায় উঠেছিল, এক সপ্তাহের মধ্যেই দৈনিক সংক্রমণ অর্ধেকেরও কম হয়ে গিয়েছে। পাল্লা দিয়ে কমছে উত্তর ২৪ পরগণার সংক্রমণও।

শহরে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৮৯৩ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ২ হাজার ৫৬৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই দুই জেলায় সুস্থ হয়েছেন যথাক্রমে ৩ হাজার ২৬৭ এবং ১ হাজার ৮৯৪ জন। কলকাতায় ১২ আর উত্তর ২৪ পরগণায় ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কলকাতায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ লক্ষ ২৮ হাজার ৭৩১, উত্তর ২৪ পরগণায় মোট আক্রান্ত ৩ লক্ষ ৮৫ হাজার ২২৪। কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৫১ হাজার ৫১৫ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৩০ হাজার ১৭৮ জন। দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৫৪১৩ এবং ৫০৯৬ জনের।

রাজ্যের বাকি জেলার চিত্র

গত ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গের বাকি ২১টি জেলায় সংক্রমণ কেমন ছিল, দেখে নিন।

১) আলিপুরদুয়ার

নতুন করে আক্রান্ত –১২২

সুস্থ হলেন –৩১

২) কোচবিহার

নতুন করে আক্রান্ত –১২৮

সুস্থ হলেন –৪২

৩) দার্জিলিং

নতুন করে আক্রান্ত –৫৯৭

সুস্থ হলেন –১৮২

৪) কালিম্পং

নতুন করে আক্রান্ত –৭৪

সুস্থ হলেন –১৭

৫) জলপাইগুড়ি

নতুন করে আক্রান্ত –৩০৭

সুস্থ হলেন –৯২

৬) উত্তর দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত -২২১

সুস্থ হলেন -৮৭

৭) দক্ষিণ দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত -১৮২

সুস্থ হলেন –৭৩

৮) মালদহ

নতুন করে আক্রান্ত -৫৮৬

সুস্থ হলেন –২৩৬

৯) মুর্শিদাবাদ

নতুন করে আক্রান্ত -২০৬

সুস্থ হলেন –১৮৯

১০) নদিয়া

নতুন করে আক্রান্ত -৫৩৬

সুস্থ হলেন -২৮৩

১১) বীরভূম

নতুন করে আক্রান্ত –৭৭৬

সুস্থ হলেন –৩৬০

১২) পশ্চিম বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত –৬৩৫

সুস্থ হলেন –৪৮১

১৩) পূর্ব বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত- ৫৯৬

সুস্থ হলেন –৩১৬

১৪) বাঁকুড়া

নতুন করে আক্রান্ত -২৭১

সুস্থ হলেন –১৪৩

১৫) পুরুলিয়া

নতুন করে আক্রান্ত -১৫৫

সুস্থ হলেন –১১৩

১৬) পূর্ব মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত -১৩৬

সুস্থ হলেন -৯৭

১৭) পশ্চিম মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত–৩৪৭

সুস্থ হলেন –১৯৭

১৮) ঝাড়গ্রাম

নতুন করে আক্রান্ত -১৪৭

সুস্থ হলেন- ৭৫

১৯) দক্ষিণ ২৪ পরগণা

নতুন করে আক্রান্ত –১,০২৯

সুস্থ হলেন –৫৯৩

২০) হুগলি

নতুন করে আক্রান্ত –৭৩৫

সুস্থ হলেন -৫৩১

২১) হাওড়া

নতুন করে আক্রান্ত –৬৮৪

সুস্থ হলেন –৬৭৮

উল্লিখিত জেলাগুলির মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু রেকর্ড করেছে হাওড়া (৪), বীরভূম (৩), দক্ষিণ ২৪ পরগণা (৩), জলপাইগুড়ি (২), পূর্ব বর্ধমান (২), উত্তর দিনাজপুর (১), মুর্শিদাবাদ (১), নদিয়া (১), ঝাড়গ্রাম (১) এবং হুগলি (১)।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন