বেছে বেছে ভ্রমণকেই টার্গেট! বাংলার প্রথম সারির এক দৈনিকের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছে পর্যটনমহল

2

নিজস্ব প্রতিনিধি: ধিকিধিকি আগুনটা অনেক দিন ধরেই জ্বলছিল, বৃহস্পতিবার সেটাই যেন দাউদাউ করে জ্বলতে শুরু করে দিল। বাংলার এক প্রথম সারির দৈনিকে প্রকাশিত হল একটি খবর আর তার পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়ল বাংলার পর্যটনমহল। সবার বক্তব্য, করোনা বৃদ্ধির জন্য বেছে বেছে শুধুমাত্র ভ্রমণকেই টার্গেট করছে ওই দৈনিকটি।

পর্যটনকে দায়ী করে খবরটি প্রকাশিত হওয়ার এর পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন সবাই। শুধুমাত্র পর্যটন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত মানুষজন নন, ওই খবরটি প্রকাশিত হওয়ার পর ভ্রমণপ্রিয় মানুষজনও রীতিমতো ক্ষুব্ধ।

পর্যটন ব্যবসায়ী কৌশিক করের বক্তব্য, পর্যটন যে হেতু অসংগঠিত ব্যবসায়িক ক্ষেত্র, তাই একে নিশানা করা খুব সহজ। তিনি বলেন, “সমস্ত পর্যটন কর্মীদের ও ব্যবসায়ীদের কাছে আমার বিনীত অনুরোধ, এর বিরুদ্ধে গর্জে উঠুন।”

amazon

পর্যটনকেন্দ্রে কত জন আক্রান্ত হচ্ছেন, সেই তথ্য চেয়ে সরাসরি ওই দৈনিককে চ্যালেঞ্জ করেছেন কৌশিকবাবু। তিনি বলেন, “ওরা তথ্য দিয়ে প্রমাণ করুক, পর্যটনকেন্দ্রে ক’ জন আক্রান্ত হচ্ছে। দুশো শতাংশ নিশ্চিত করে বলতে পারি ধর্মীয় অনুষ্ঠান এবং রাজনৈতিক দলের মিটিং মিছিলে অনেক বেশি মেলামেশা হয় ও সংক্রমণ ছড়ায়। কিন্তু সে দিকে আঙুল তোলার হিম্মত কারোর নেই।”

উল্লেখ্য, গত বছর এই জুলাই মাসে ওই দৈনিকেই দার্জিলিং জেলায় সংক্রমণের পেছনে পর্যটকদের আনাগোনাকে দায়ী করে খবর করা হচ্ছিল প্রায় নিয়মিত। কিন্তু দার্জিলিং জেলা স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান যাচাই করে দেখা যায় যে জেলার মোট সংক্রমণের ৯৫ শতাংশই হচ্ছিল শিলিগুড়ি এবং তার আশেপাশের অঞ্চলে। দার্জিলিং, কার্শিয়াংয়ের মতো পর্যটকভরতি জায়গায় সংক্রমণের কার্যত কোনো খবরই পাওয়া যায়নি। সেই খবর প্রকাশিত হয় খবর অনলাইনেই

মানুষের ক্ষোভের একটা বড়ো কারণ, কেন মিটিং-মিছিলের ব্যাপারে কথা বলা হয় না ওই দৈনিকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক ভ্রামণিক বলেন, “রাজনৈতিক সভাসমাবেশ তো দিব্যি চলছে। সেগুলোর বিরুদ্ধে তো কেউ কিছু বলছে না। সামনের সপ্তাহেই কলকাতায় বিশাল বড়ো রাজনৈতিক সমাবেশ হবে। অল্প পরিসরে লক্ষাধিক মানুষ আসবে সে দিন, গ্রাম থেকে কলকাতায় এসে তারা আবার গ্রামে ফিরে যাবে। এতে কি সংক্রমণ ছড়ানোর কোনো আশঙ্কা নেই? করোনা কি শুধুই পর্যটন আর শিক্ষাক্ষেত্রে ছড়ায়? রাজনৈতিক সমাবেশকে করোনা ভয় পায়?”

ভ্রমণ ব্যবসায়ী তিমির চট্টোপাধ্যায় তো সরাসরি ওই দৈনিককে বয়কট করার ডাক দিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। সেই সঙ্গে তিনি লিখেছেন, “ওই পত্রিকা পর্যটনব্যবসায়ীদের তরফ থেকে প্রচুর বিজ্ঞাপন পায় প্রতি সপ্তাহে, কিন্তু সেই পর্যটনের বিরুদ্ধেই এমন খবর করেছে, যা বলার ভাষা নেই!”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা ছড়ানোর পেছনে পর্যটনকে যে ভাবে দায়ী করা হয়েছে, তার স্বপক্ষে সে ভাবে কিন্তু যুক্তি নেই। ২০২০-তে আছড়ে পড়া প্রথম ঢেউয়ের সময় জেলায় জেলায় করোনা ছড়িয়ে পড়েছিল লকডাউনের সময়ই। আবার সে বছর অক্টোবরের পর থেকে যখন পর্যটকদের আনাগোনা বাড়তে শুরু করে, তখনই কিন্তু করোনার দাপট কমতে শুরু করে বিভিন্ন জেলায়।

ঠিক একই ঘটনা ঘটেছে ২০২১ সালে ভয়াবহ দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময়ও। তখনও কলকাতার গণ্ডি পেরিয়ে জেলায় সংক্রমণ ছড়িয়েছিল বিধিনিষেধ তথা ‘কার্যত লকডাউন’-এর সময়। এ বছর জানুয়ারিতে তৃতীয় ঢেউয়ের সময় গত ২ জানুয়ারি পর্যটনস্থল বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু দেখা যায় যে ৫ জানুয়ারি থেকে বিভিন্ন জেলায় লাগাতার বাড়তে থাকে সংক্রমণ।

আদতে পর্যটন নয়, এমনকি মিটিং-মিছিলও নয়, সংক্রমণ জেলায় ছড়িয়ে পড়বে তার স্বাভাবিক নিয়ম মেনেই। প্রথমে বড়ো শহরে সংক্রমণ বাড়বে, তার পর তা বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়বে। তৃতীয় ধাপে সংক্রমণ কমতে শুরু করবে সব জায়গায়। এটাই করোনার স্বাভাবিক গতি। কোনো বিধিনিষেধ আরোপ করেও এই স্বাভাবিক গতিকে রোধ করা যায় না, অতীতই আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে।

করোনাকালে পর্যটন অন্যতম বাঁচার রসদ বলে মনে করেন ভ্রামণিক শর্মিষ্ঠা সেন। তিনি বলেন, “২০২০-এর সেপ্টেম্বর থেকে আমরা নিয়মিত বেড়াতে বেরোচ্ছি। করোনাকালে ইতিমধ্যে পাঁচটা ছোটো এবং দু’টো বড়ো ট্যুর করেছি। সম্প্রতি কেরল ট্যুর করে এসেছি। একদম সুস্থ অবস্থায় ভ্রমণ করেছি। বেড়াতে বেরিয়ে কোনো দিনও অসুস্থ হইনি কোনো ভাবেই। বরং শহরে থাকতে থাকতে অসুস্থ হয়ে পড়ি, বেড়াতে গেলে অক্সিজেন পাই। সুতরাং পর্যটনের জন্য করোনা ছড়ায়, এই যুক্তি মানতে পারছি না কিছুতেই।”

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন

2 COMMENTS

  1. Sokol Travel Agent o Tour Operator Der uchit Ei New Paper ke Financially bolck Kora ete advertising deoa bondho kore.

    Tahole Eder Tanak norbe nachet noi.

    • Egiye asun…… amra kadhe kadh miliye ei pratrikar birudhey jonmot gore tuli
  2. Sokol Travel Agent o Tour Operator Der uchit Ei New Paper ke Financially bolck Kora ete advertising deoa bondho kore.

    Tahole Eder Tanak norbe nachet noi.

    Egiye asun…… amra kadhe kadh miliye ei pratrikar birudhey jonmot gore tuli

Comments are closed.