খবর অনলাইন ডেস্ক: আর্ত মানুষের সেবায় এগিয়ে এলেন খড়গপুরের (Kharagpur) শিক্ষক। করোনাভাইরাস (coronavirus) জনিত পরিস্থিতির মোকাবিলায় টানা প্রায় দেড় মাস ধরে চলছে লকডাউন (lockdown)। এই অবস্থায় বহু পরিবারের মুখে ভাতটুকু জুটছে না। বেঁচে থাকার জন্য তাঁদের ভরসা বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের দান। এ বার এই সামাজিক কাজে এগিয়ে আসছেন ব্যক্তিবিশেষ। তেমনই একজন মানুষ এই শিক্ষক।

পেশায় শিক্ষক সুমন কল্যাণ ধাড়া খড়গপুর ২ নম্বর ব্লক-এর বাসিন্দা। লকডাউন চলাকালীন ৪টি দফায় তিনি খড়গপুরের আদিবাসী সম্প্রদায়ভুক্ত নিরন্ন পরিবারগুলির হাতে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস তুলে দিলেন।

Loading videos...
তখন বিতরণ চলছে।

গত ১ মে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবসের দিন সর্বমোট ৮৮টি আদিবাসী সম্প্রদায়ভুক্ত পরিবারের হাতে পরিবারপিছু ১২টি করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য তুলে দিয়েছেন সুমনবাবু।

এর আগে ৩ এপ্রিল, ১৪ এপ্রিল ও ১৭ এপ্রিল, এই তিন দিন সর্বমোট ৫২টি আদিবাসী সম্প্রদায়ভুক্ত পরিবারের হাতে ৯-১০টি করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য তুলে দেওয়া হয়েছিল খড়গপুর গ্রামীণ এলাকার অন্তর্ভুক্ত সামরাইপুর, আম্বা পশ্চিম ও আম্বা পূর্ব অঞ্চলে।

আরও পড়ুন: পরিযায়ী শ্রমিকদের ট্রেন সফরের খরচ দেবে কংগ্রেস, ঘোষণা সনিয়া গান্ধীর

সুমনবাবু নরেন্দ্রপুর ও বেলুড় রামকৃষ্ণ মিশনের প্রাক্তনী। তাই স্বাভাবিক ভাবেই আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবসের দিন তাঁর পাশে দাঁড়ান নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের কয়েক জন প্রাক্তনী ও অধ্যাপক। পাশে ছিলেন তাঁর কিছু সহকর্মী ও এলাকার পরিচিতজনেরাও। খড়গপুর লোকাল থানার প্রতিনিধিরা এই বিতরণপর্বে আমন্ত্রিত ছিলেন।

খড়গপুর লোকাল থানার তরফে তাঁর এই উদ্যোগের প্রশংসা করা হয় ও বন্টনের সময় প্রতিনিধি পাঠিয়ে সুমনবাবুকে সহায়তা করা হয়। পিছিয়ে পড়া মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সমাজের অন্যদের প্রতি আহ্বান জানান সুমনবাবু। পরবর্তীতে তাঁর পাশে থাকা মানুষজনকে নিয়ে বৃহত্তর সামাজিক কাজে নামারও ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.