খবর অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস (coronavirus) জনিত পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে দু’ মাসেরও বেশি হয়ে গেল চলছে লকডাউন (lockdown)। কর্মহীন বহু পরিবার অভুক্ত অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। খড়গপুরের (Kharagpur) এমনই কিছু আর্ত মানুষের সেবায় এগিয়ে এল ‘সিমপ্যাটিকো’ (SIMPATICO) অর্থাৎ ‘সমমনস্ক’।

বেলুড় ও নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের প্রাক্তনী ও পেশায় শিক্ষক খড়গপুরের সুমন কল্যাণ ধাড়া তাঁর সহকর্মী, সহপাঠী, নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের প্রাক্তনী ও অধ্যাপক এবং নিকট মানুষদের একত্রিত করে গড়েছেন ‘সিমপ্যাটিকো’।

Loading videos...

‘সিমপ্যাটিকো’ পবিত্র ইদের দিন খড়গপুর অঞ্চলের পৃথিমপুর, বহড়াপাট, আশাপুর, কুশমাবাগ, কামারপাড়া ও গোকুলপুর গ্রামের সর্বমোট ২২৫ জন সহায়সম্বলহীন আদিবাসী ও মুসলিম বিধবার হাতে ১২টি করে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী তুলে দিল।

সুমনবাবুর আবেদনে সাড়া দিয়ে মেদিনীপুর হোমিওপ্যাথি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের (Medinipur Homoeopathy Medical College &Hospital) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ শ্রীমন্ত সাহা নিজে উপস্থিত থেকে তাঁর মেডিক্যাল টিমের তত্ত্বাবধানে কোভিড ১৯-এর (Covid 19) প্রতিষেধক হোমিওপ্যাথিক ওষুধ ‘আর্সেনিক অ্যালবাম ৩০’ (Arsenic Album 30) বিতরণ করেন। ডাঃ সাহা এই ধরনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে আরও মানুষকে এই কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

সুমনবাবু এর আগেও লকডাউন চলাকালীন ব্যক্তিগত ভাবে ৫৪টি আদিবাসী পরিবারকে সাহায্য করেছিলেন ও তাঁর পরিচিতদের সহযোগিতায় ১ মে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবসের দিন ৮৮টি আদিবাসী পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন ১২টি নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.