Connect with us

পশ্চিম মেদিনীপুর

হাতির হানায় মৃতের পরিবারের সদস্যকে চাকরি, ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পশ্চিম মেদিনীপুরে প্রশাসনিক বৈঠকে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: মঙ্গলবার পশ্চিম মেদিনীপুরে প্রশাসনিক বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এ দিন তিনি ঘোষণা করেন,”হাতির হানায় মৃতের পরিবারের সদস্য চাকরি পাবেন”।

এ দিনই হাতির হামলায় মৃত জেলার একজনের পরিবারের সদস্যের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়ায় প্রায়শই হাতির পাল জঙ্গল থেকে বেরিয়ে লোকালয়ে হানা দেয়। হাতির হানায় যেমন সম্পত্তিহানি হয়, তেমনই প্রাণহানিও হয়। এ বার থেকে হাতির আক্রমণে কেউ মারা গেলে, তাঁর পরিবারের একজনকে হোমগার্ডপদে চাকরি দেওয়া হবে।

Loading videos...

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “হাতির তাণ্ডবে একাধিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। সেই কারণে সরকারের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, হাতির হানায় মৃতের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করা হবে। পাশাপাশি, মৃতের পরিবারের একজনকে চাকরিও দেওয়া হবে”।

এর পাশাপাশি মাওবাদী হামলায় মৃত অথবা ১০ বছর ধরে নিখোঁজ ব্যক্তির পরিবারের একজনকে চাকরি অথবা চার লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।

এ দিনের পর্যালোচনা বৈঠকে কোভিড পরিস্থিতি, একশো দিনের কাজ, কুটির শিল্প-সহ একাধিক উন্নয়নমূলক প্রকল্পের কাজের গতি সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে বেশ কিছু নতুন চিন্তাভাবনার কথা ব্যক্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Administrative review meeting of Paschim Medinipur District

Administrative review meeting of Paschim Medinipur District I পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠক

Posted by Mamata Banerjee on Tuesday, 6 October 2020

আরও পড়তে পারেন: ৭ টাকায় পৌঁছেছে ডিমের দাম, আরও বাড়বে?

দীপাবলি-কালীপুজো

পশ্চিম মেদিনীপুর খেপুত গ্রামে সাবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবারে সোয়া ২০০ বছরের কালীপুজো

সম্ভবত ১৭৯৮ খ্রিস্টাব্দে কার্তিক মাসের অমাবস্যা তিথিতে রামদুলাল তাঁর খেপুতের বাড়িতে কালীপুজো শুরু করেন।

Published

on

মায়ের বিগ্রহ, খেপুত সাবর্ণ পরিবারে।

শুভদীপ রায় চৌধুরী

সাবর্ণ গোত্রীয় রামদুলাল রায় চৌধুরী ১৭৭২ খ্রিস্টাব্দে অধুনা পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চেতুয়া অঞ্চলের জমিদারি লাভ করে রূপনারায়ণ নদের পশ্চিম তীরে খেপুত উত্তরবাড় গ্রামে চলে যান। তখন এই এলাকার হুজুরি জমিদার ছিলেন বর্ধমানের মহারাজরা।

বর্ধমানের রাজপরিবারের সঙ্গে বড়িশার সাবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবারের বরাবরই সুসম্পর্ক ছিল। রামদুলাল রায় চৌধুরী বর্ধমানের রাজপরিবারের রাজা তেজশ্চন্দ্র বা তেজচাঁদার খুবই ঘনিষ্ঠ ছিলেন। সে সময় মেদিনীপুরের চেতুয়া ও বরদা পরগনা রাজা তেজচাঁদের জমিদারির অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। ওই দুই পরগনায় অনিয়মিত রাজস্ব আদায়ে বিচলিত হয়ে তেজচাঁদ উক্ত এলাকার জন্য ছোটো জমিদারের খোঁজ করছিলেন। শেষ পর্যন্ত বড়িশার রামদুলাল রায় চৌধুরীর পূর্বের সুসম্পর্কের কথা মনে করে তাঁকেই ওই অঞ্চলের জমিদারি দেন রাজা তেজচাঁদ। এ কাজে সম্ভবত রামদুলালের জ্যাঠামশাই সন্তোষ রায় চৌধুরীর হস্তক্ষেপও ছিল।       

Loading videos...

রামদুলাল রায় চৌধুরী চেতুয়ার জমিদারি লাভ করার পর রূপনারায়ণ নদের পশ্চিম তীরে খেপুত উত্তরবাড় মৌজায় বাসস্থান তৈরি করেন। মাটির ঠাকুরঘর নির্মাণ করেন। সেই সঙ্গে রঘুনাথ জিউকেও তাঁরা খেপুতের বাড়িতে নিয়ে যান। উত্তরবাড়ের প্রাচীন বিগ্রহ শ্রীশ্রীমা খেপতেশ্বরী অষ্টভুজা মহিষমর্দিনী। আগে দেবীর জন্য একটি মাটির মন্দির ছিল। পরে ১৭৭৯ সাল নাগাদ সম্ভবত বর্ধমানরাজের বদান্যতায় মাটির মন্দিরের জায়গায় তৈরি হয় দক্ষিণমুখী আটচালা মন্দির। মন্দিরের দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ যথাক্রমে ২৪ ফুট ১০ইঞ্চি এবং ২৩ ফুট ৬ইঞ্চি।

সম্ভবত ১৭৯৮ খ্রিস্টাব্দে কার্তিক মাসের অমাবস্যা তিথিতে রামদুলাল তাঁর খেপুতের বাড়িতে কালীপুজো শুরু করেন। বড়িশাবাড়ির দুর্গাপুজোর কথা স্মরণ করে বিজয়াদশমীর দিন রামদুলাল আমিষ ভোগ দিয়ে দেবীর তৃণমূর্তির পদে মৃত্তিকা লেপন করেন। অর্থাৎ বড়িশাবাড়ির দুর্গাপুজোর শেষে খেপুতবাড়ির কালীপুজো শুরু হয়।

বিজয়াদশমীর দিন বিশেষ নিয়মে পুকুর থেকে মাটি তোলা হয়। পরের দিন থেকেই শুরু হয় কালীপ্রতিমা তৈরির কাজ। নিয়ম মেনে পারিবারিক আটচালায় তৈরি হয় প্রতিমা।

খেপুতের সাবর্ণ পরিবারে কালীপুজো।

সাবর্ণদের কালীপুজোর সঙ্গে গোড়া থেকে যে সব সূত্রধর, নরসুন্দর, কর্মকার, কুম্ভকার, মালাকার ও গো-পালক পরিবার জড়িত ছিলেন, তাঁরা বংশানুক্রমিক ভাবে আজও এই পুজোর সঙ্গে জড়িয়ে আছেন। সূত্রধর ও কুম্ভকাররা আজও সাবর্ণদের ঠাকুর তৈরি করে অন্য কালীঠাকুর তৈরিতে হাত দেন। ডাকের গয়নায় সজ্জিত এই প্রাচীন করালবদনা কালী আজও খেপুত-সহ গোটা মেদিনীপুর অঞ্চলের মানুষের কাছে জনপ্রিয়। সাবর্ণদের প্রায় সোয়া দুশো বছরের পুরোনো এই কালীপুজোর ব্যয়ভার মূলত বহন করে ‘সাবর্ণ রায় চৌধুরী গোষ্ঠী সংসদ’। এই বাড়ির অধীনস্থ ইশারা পুকুরের মাছ দিয়েই দেবীকে ভোগ দেওয়া হয়। মানতের জন্য প্রচুর সংখ্যায় বলিদানও হয় এই পুজোয়। এই বাড়ির দেবী কালিকার গায়ের রঙ সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়।

যেখানে সাবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবার রয়েছে, সেখানেই শাক্ত, শৈব এবং বৈষ্ণব, এই তিন ধারার মেলবন্ধন ঘটেছে। খেপুতের বাড়িও তার ব্যতিক্রম নয়। তবে এখানে শাক্ত-শৈব-বৈষ্ণবধারার সমন্বয় ঘটানো হল একই মন্দিরে। এখানে শ্যামরায়ের পরিবর্তে শ্রীরঘুনাথ আর তাঁরই মন্দিরে শিব ও শ্যামার যুগল বিগ্রহ বিরাজমান। দীপাবলীর দিন কালীমাতার উদ্দেশে ভোগ নিবেদনের আগে শ্রীরঘুনাথের ভোগ নিবেদন করা হয়।

কালীঘাটের দেবী কালিকা হলেন সাবর্ণ বংশের ইষ্টদেবী। গঙ্গার পশ্চিম পারের কালীমাতার অনুকরণেই খেপুতের দেবীর নাসিকায় রসকলি, বৈষ্ণবী তিলক। দেবী দীঘলনয়না, গলে নরমুণ্ডমালা। চতুর্হস্তা ভদ্রকালীরূপ। ভীষণা মূর্তির মধ্যেই স্নেহময়ী বরদাতৃ মাতৃরূপ। দেবীর বামে শৃগাল ও ডাকিনী আর দক্ষিণে যোগিনী।

পরিবারের পুরুষ সদস্যরা পুজোর যাবতীয় কাজ করে থাকেন। ঘট তোলার আগে প্রথমে মাটির হাঁড়িতে জল ভর্তি করা হয়। সেই হাঁড়ি রাখা হয় আটচালাতেই। জলের হাঁড়িতে প্রদীপ ভাসিয়ে দেওয়া হয়। প্রদীপেও থাকে ছোটো ছোটো ছিদ্র। ওই ছিদ্র দিয়ে এক সময় জল-ঢুকে প্রদীপ পূর্ণ হলে তা ডুবে যায়। জলের হাঁড়িতে চন্দনের টিপ দেওয়া থাকে। এক একটি টিপ ২৪ মিনিটের সূচক। প্রদীপ ডোবা মাত্রই পরিবারের এক পুকুরেই ঘট ডুবিয়ে পুজো শুরু হয়।

কালীমাতার আমিষ ভোগে সব রকম সবজি দেওয়া হয়। মা কালীর ভোগে অন্নভোগ, খিচুড়িভোগ, ডাল, ভাজা, পায়েস, নানা রকমের তরকারি ইত্যাদি নিবেদন করা হয়। মহাকালের জন্য আতপচালের নিরামিষ ভোগ হয়। এই রায় চৌধুরী বাড়িতে কালীপুজোয় শুধুমাত্র ভোগ রান্নার সাহায্য করতে পারেন মহিলারা।

পুজোর আয়োজন।

অতীতে কালীপুজোয় শতাধিক ছাগবলি হত, বিংশ শতকের মাঝামাঝি অবধি ২৫/৩০টা ছাগবলি হত। বর্তমানে ১০/১৫টি ছাগবলি হয়। বলিদানের সময়ে ঢাক-ঢোল-কাঁসরের আওয়াজে পাড়া মুখরিত হয়।

কালীপুজো উপলক্ষ্যে বাড়ির মেয়েরা বাজি প্রদর্শনীতে মেতে ওঠেন ও বিশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

কালীঘাটের বিধিমতো রামদুলাল দীপান্বিতা কালীপুজোর দিন কুলো বাজিয়ে চালগুঁড়ি আর গোবরের তৈরি অলক্ষ্মী মূর্তি বিদায় করে লক্ষ্মীপুজোর রীতিও প্রচলন করেছিলেন। তবে এই লক্ষ্মীপুজো দেবালয়ে না করে গৃহকোণে অনুষ্ঠিত হয়। কালীঘাটের বিধিমতোই লক্ষ্মীর নিরামিষ ভোগে উচ্ছে-করলা বা তেঁতো জাতীয় কোনো সবজি দেওয়া নিষেধ করলেন তিনি।

খেপুত-উত্তরবাড়ের বাড়িতে কালীপুজো শুরু হওয়ার পর চেতুয়া পরগণার অধীন রাধাকান্তপুর, সাগরপুর, কৈজুড়ি-মুগড়িয়া প্রভৃতি মৌজারও জমিদারি পান রামদুলাল রায় চৌধুরী।

এই ভাবে ঐতিহ্য ও পরম্পরাকে অক্ষুণ্ণ রেখেই প্রাচীন রীতি মেনে পুজো হয়ে আসছে মেদিনীপুরের খেপুত গ্রামে। তবে এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে উৎসবের ব্যাপ্তি কিছুটা কম হলেও প্রাচীন রীতি মেনেই পুজো হবে বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

কালীপুজোর দিন কুমারীপুজো হয় টালিগঞ্জের মা করুণাময়ী কালীমন্দিরে 

Continue Reading

দুর্গা পার্বণ

অ্যান্টনি ফিরিঙ্গির শ্যুটিং করতে উত্তমকুমার এসেছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের জাড়া রাজবাড়িতে

রাজীবলোচন রায় পরবর্তীকালে ‘রাজা’ উপাধি পেয়েছিলেন এবং তাঁর হাত ধরেই দুর্গাপুজোর সূচনা হয় জাড়া রাজবাড়িতে।

Published

on

Durga Idol at Jara Rajbari
জাড়া রাজবাড়ির দুর্গাপ্রতিমা।

শুভদীপ রায় চৌধুরী

ইতিহাস এবং ঐতিহ্য যেন কথা বলে বঙ্গের বিভিন্ন ঠাকুরদালানে। এই ঠাকুরদালানগুলো আর বনেদিবাড়ি ঘুরে দেখলে বোঝা যায়, কোনো কোনো ঠাকুরদালানের বয়স ৩০০ বছরের কাছাকাছি, কোনো কোনোটা ৩০০ বছরেরও বেশি। এই বঙ্গে রয়েছে বেশ কিছু রাজবাড়ি, যে রাজবাড়ির ঠাকুরদালান, বাহিরমহল, নাটমন্দির-সহ বিভিন্ন প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখলে আজও যেন মনে হয় কত প্রাচীন সে সব।

আজ এমন একটি রাজবাড়ির কথা আলোচনা করা হবে, যে রাজবাড়িতে এক সময় এসেছিলেন মহানায়ক উত্তমকুমার তাঁর ছায়াছবির শ্যুটিং করতে। ছবির নাম ‘অ্যান্টনি ফিরিঙ্গি’। সেই রাজবাড়ি হল পশ্চিম মেদিনীপুরের জাড়া রাজবাড়ি। যে রাজবাড়ির ইতিহাস এবং ঐতিহ্য যা আজও বঙ্গের সংস্কৃতিকে গৌরবান্বিত করে। বঙ্গের প্রাচীন ইতিহাসে এই জাড়াগ্রামের রায় বংশের কথা সুঅক্ষরে রচিত রয়েছে। এই বংশের আদি পদবি গঙ্গোপাধ্যায়, পরবর্তী কালে ‘রায়’ উপাধি পেয়েছিলেন পরিবারের পূর্বপুরুষরা।

Loading videos...

এই বংশের সুসন্তান রামগোপাল রায়ের সুপুত্র রাজীবলোচন রায় জাড়া বংশের গৌরবকে আরও মহিমান্বিত করে। শিক্ষিত এবং সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান রাজীবলোচন রায়ের সে সময়ে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল প্রায় ১৪ লক্ষ টাকা। এই রাজীবলোচন রায় পরবর্তীকালে ‘রাজা’ উপাধি পেয়েছিলেন এবং তাঁর হাত ধরেই দুর্গাপুজোর সূচনা হয় জাড়া রাজবাড়িতে।

জাড়া রাজবাড়ির দুর্গাপুজো প্রায় ২২০ বছরের পুরোনো। সেই প্রথম দিন থেকে আজও রায় পরিবারে প্রাচীন রীতিনীতি মেনেই পুজো হয় দেবীর। এই রাজবাড়ির পুজো হয় বিশুদ্ধসিদ্ধান্ত পঞ্জিকা মতে এবং এখানে বলিদানের কোনো প্রথা নেই।  দুর্গাপুজোর মহাষ্টমীর দিন ব্রাহ্মণভোজন এবং দরিদ্রনারায়ণ সেবার আয়োজন করেন রাজবাড়ির সদস্যরা। মহানবমীর দিন পরিবারের সকল সদস্য একসঙ্গে মিলে খাওয়াদাওয়া করেন। পুজোর সময় রাজা রামমোহন রায়, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মতো বিশিষ্ট মানুষজন আসতেন রাজবাড়িতে। অতীতে পুজোর সময় যাত্রা অনুষ্ঠিত হত, তবে এখন আর হয় না।

মায়ের মুখ, জাড়া রাজবাড়ি।

এই বাড়িতে পুজোর সময় প্রায় পঁচিশ রকমের রান্নার পদ হয় – খিচুড়ি, সাদাভাত, নানা রকমের ভাজা, তরকারি, পায়েস, চাটনি ইত্যাদি। সন্ধিপূজায় সিঁদুরখেলা হয় রাজবাড়িতে যা দেখতে দূরদূরান্ত থেকে ছুটে আসেন অগণিত দর্শনার্থী।

দশমীর দিন প্রতিমা বিসর্জনের পর পরিবারের সকল সদস্য বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘যাসনে মা ফিরে, যাসনে জননী’ গানটি গাইতে গাইতে বাড়ি ফেরেন। সে যেন এক বিষাদময় পরিবেশ। বাড়ির মেয়ে শ্বশুরবাড়িতে ফিরে গিয়েছে, আবার একটা বছরের অপেক্ষা।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরার বকশিবাড়ি বৈষ্ণবধারার হলেও পুজোয় বলিদান হয় দেবীরই আদেশে

Continue Reading

পশ্চিম মেদিনীপুর

ফুঁসছে কাঁসাই ও শিলাই, ঘাটাল-দাসপুরের বিস্তীর্ণ অঞ্চল প্লাবিত

গত কয়েক দিন ধরেই বৃষ্টি চলার ফলে শিলাবতীর জল উপচে প্লাবিত হয়েছে ঘাটাল শহরের ১২টি ওয়ার্ড।

Published

on

ghatal west midnapore
বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নতুন নিম্নচাপের বৃষ্টি এখনও সে ভাবে শুরু হয়নি দক্ষিণবঙ্গে। তার আগেই বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়ে গেল পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল, দাসপুর-সহ বিভিন্ন অঞ্চলে।

টানা বৃষ্টির কারণে ফুঁসছে শিলাবতী এবং কংসাবতী। এর জেরে নতুন করে প্লাবিত হয়েছে ঘাটাল-দাসপুরের বহু গ্রাম। দাসপুরে তলিয়ে যাওয়া যুবকের দেহ সোমবার ঘাটালের শিলাবতী নদী থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার দাসপুরের কল্যাণপুরে মৃতদেহ সৎকার করে ফেরার সময় নদীতে তলিয়ে গিয়েছিলেন সুকুমার পাত্র (৪৬) নামে ওই যুবক।

গত কয়েক দিন ধরেই বৃষ্টি চলার ফলে শিলাবতীর জল উপচে প্লাবিত হয়েছে ঘাটাল শহরের ১২টি ওয়ার্ড। প্লাবিত এলাকাগুলিতে যোগাযোগের উপায় আপাতত  নৌকা।

Loading videos...

শহরের অনেকাংশ জলে ডুবে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে সাপের আতঙ্কও। পুরসভা সূত্রের খবর, শহরে জল বাড়ায় ঘাটাল পুরসভার পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডে পুর-হাসপাতালটিও জলের তলায় চলে গিয়েছে। ফলে বন্ধ হয়ে গিয়েছে হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরিষেবা।

ঘাটাল ব্লকের আজবনগর ১ ও ২, দেওয়ানচক ১ ও ২, মোহনপুর, মনসুকা-সহ বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বহু গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। জল বাড়ায় ‘ফ্লাড শেল্টার’গুলিও তৈরি রাখা হয়েছে। বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যদেরও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঘাটালের মহকুমাশাসক অসীম পাল বলেন, “পরিস্থিতির উপর নজর রাখা হচ্ছে। প্রশাসন সতর্ক। প্রয়োজনীয় যাবতীয় পদক্ষেপ করা হয়েছে।”    

ইতিমধ্যেই চোখ রাঙাতে শুরু করে দিয়েছে নতুন নিম্নচাপটি। এই নিম্নচাপের প্রভাবে মঙ্গলবার দুপুর থেকে ফের বৃষ্টি শুরু হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

চাষের জমিতে জল জমছে, দ্রুত নিষ্কাশনের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বিদেশ2 hours ago

ফ্রাইং প্যান দিয়ে বাবার বিড়াল মেরে গ্রেফতার ছেলে

দঃ ২৪ পরগনা2 hours ago

বজবজে সভা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের, বার্তা দিতে পারেন দলের ‘বেসুরো’দের

ভ্রমণ কথা2 hours ago

রূপসী বাংলার সন্ধানে ৩/ রোমান্টিক ঝিলিমিলির আশেপাশে

দেশ3 hours ago

এক ধাক্কায় নমুনা পরীক্ষা বাড়ল অনেকটাই, সংক্রমণ বাড়ল সামান্যই

দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৪১৮১০, সুস্থ ৪২২৯৮

রবিবারের পড়া3 hours ago

রবিবারের পড়া: চলে গেলেন অলোকরঞ্জন, খুলে গেল বাংলা কবিতার বাহুডোর

দেশ4 hours ago

কোভিড-টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে দু’সপ্তাহের মধ্যে আবেদন জানাবে সেরাম

রাজ্য5 hours ago

মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর শুভেন্দু অধিকারীর প্রথম সভা

দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৪১৮১০, সুস্থ ৪২২৯৮

দেশ3 days ago

ধর্মঘট সফল, দাবি বামফ্রন্টের, নীতিগত ভাবে সমর্থন মমতার

ফুটবল2 days ago

কৃষ্ণা-মনবীরের গোলে আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে দুরন্ত জয় এটিকে মোহনবাগানের

রাজ্য2 days ago

মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী

ফুটবল2 days ago

বুয়েনোস আইরেসের বিভিন্ন জায়গায় মারাদোনার ভক্তদের সঙ্গে পুলিশের খণ্ডযুদ্ধ

রাজ্য3 days ago

রাজ্যে সবার জন্য স্বাস্থ্যসাথী বিমা প্রকল্প, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

জীবন যেমন2 days ago

শীতের শুরুতে রুক্ষ চুল! ৮টি ঘরোয়া টোটকা, মসৃণতা ফিরে আসবেই

Ali Zaker
বাংলাদেশ2 days ago

স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের শব্দসৈনিক বরেণ্য অভিনেতা আলী যাকের আর নেই

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

৫০০ টাকার মধ্যে অত্যাধুনিক হেডফোন

খবর অনলাইন ডেস্ক: হেডফোন খারাপ হয়ে গেছে? সস্তায় নতুন ধরনের হেডফোন খুঁজছেন? হেডফোনের কয়েকটি অত্যাধুনিক কালেকশন রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা3 days ago

শীতের নতুন কিছু আইটেম, দাম নাগালের মধ্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: শীত এসে গিয়েছে। সোয়েটার জ্যাকেট কেনার দরকার। কিন্তু বাইরে বেরিয়ে কিনতে যাওয়া মানেই বাড়ি এসে এই ঠান্ডায়...

কেনাকাটা4 days ago

ঘর সাজানোর জন্য সস্তার নজরকাড়া আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক: ঘরকে একঘেয়ে দেখতে অনেকেরই ভালো লাগে না। তাই আসবারপত্র ঘুরিয়ে ফিরে রেখে ঘরের ভোলবদলের চেষ্টা অনেকেই করেন।...

কেনাকাটা1 week ago

লিভিংরুমকে নতুন করে দেবে এই দ্রব্যগুলি

খবর অনলাইন ডেস্ক: ঘরের একঘেয়েমি কাটাতে ও সৌন্দর্য বাড়াতে ডিজাইনার আলোর জুড়ি মেলা ভার। অ্যামাজন থেকে তেমনই কয়েকটি হাল ফ্যাশনের...

কেনাকাটা2 weeks ago

কয়েকটি প্রয়োজনীয় জিনিস, দাম একদম নাগালের মধ্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: কাজের সময় হাতের কাছে এই জিনিসগুলি থাকলে অনেক খাটুনি কমে যায়। কাজও অনেক কম সময়ের মধ্যে করে...

কেনাকাটা3 weeks ago

দীপাবলি-ভাইফোঁটাতে উপহার কী দেবেন? দেখতে পারেন এই নতুন আইটেমগুলি

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই কালীপুজো, ভাইফোঁটা। প্রিয় জন বা ভাইবোনকে উপহার দিতে হবে। কিন্তু কী দেবেন তা ভেবে পাচ্ছেন...

কেনাকাটা1 month ago

দীপাবলিতে ঘর সাজাতে লাইট কিনবেন? রইল ১০টি নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আসছে আলোর উৎসব। কালীপুজো। প্রত্যেকেই নিজের বাড়িকে সুন্দর করে সাজায় নানান রকমের আলো দিয়ে। চাহিদার কথা মাথায় রেখে...

কেনাকাটা2 months ago

মেয়েদের কুর্তার নতুন কালেকশন, দাম ২৯৯ থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজো উপলক্ষ্যে নতুন নতুন কুর্তির কালেকশন রয়েছে অ্যামাজনে। দাম মোটামুটি নাগালের মধ্যে। তেমনই কয়েকটি রইল এখানে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা2 months ago

‘এরশা’-র আরও ১০টি শাড়ি, পুজো কালেকশন

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই পুজো আর পুজোর জন্য নতুন নতুন শাড়ির সম্ভার নিয়ে হাজর রয়েছে এরশা। এরসার শাড়ি পাওয়া...

কেনাকাটা2 months ago

‘এরশা’-র পুজো কালেকশনের ১০টি সেরা শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো কালেকশনে হ্যান্ডলুম শাড়ির সম্ভার রয়েছে ‘এরশা’-র। রইল তাদের বেশ কয়েকটি শাড়ির কালেকশন অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

নজরে