ডাইনি অপবাদে মহিলাকে বেধড়ক মার পশ্চিম মেদিনীপুরে, হাসপাতালে ধুঁকছেন আক্রান্ত

0
এলাকারই ১০-১২ জন মিলে চড়াও হয় মহিলার উপর। প্রতীকী ছবি

মেদিনীপুর: ডাইনি সন্দেহে এক মহিলাকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সদর ব্লকের সাতগেড়িয়া এলাকায়। গুরুতর জখম অবস্থায় ওই মহিলা এখন চিকিৎসাধীন মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

মহিলার পরিবারের দাবি, এলাকার কয়েকজন বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। এর জন্য দায়ী করা হয় ওই বছর পঞ্চাশের মহিলাকে। ডাইনি অপবাদ দেওয়া হয় তাঁকে। এর পরই বাড়িতে চড়াও হয়ে মহিলাকে বেধড়ক মারধর করা হয়।

ঘটনায় প্রকাশ, এলাকারই ১০-১২ জন মহিলার বাড়িতে এসে গালিগালাজ করে। এমনকী বেধড়ক মারধরও করা হয় তাঁকে। মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে মহিলার। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় বাসিন্দারাই তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে পাঁচখুরি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

জানা গিয়েছে, শনিবার রাতে ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় কোতোয়ালি থানার পুলিশ। তবে এই ঘটনায় ১২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হলেও, ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, তদন্ত চলছে।

পরিবারের আরও অভিযোগ, এই প্রথম বার নয়, এর আগেও ওই মহিলাকে একাধিক বার হেনস্থা করা হয়েছে। যার জেরে দীর্ঘ দিন তাঁকে ঘরছাড়াও থাকতে হয়েছিল।

সভ্যতা এগিয়েছে। কিন্তু একুশ শতকেও কুসংস্কারের দাপট কতটা, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিচ্ছে এ ধরনের ঘটনা। প্রায়শই এ ধরনের ঘটনার কথা প্রকাশ্যে উঠে আসে। স্মার্টফোনের যুগেও বিজ্ঞানমনস্কতা আদৌ কতটা গভীরে পৌঁছেছে, সেই প্রশ্নের সামনেই আধুনিক সমাজকে দাঁড় করিয়ে দেয় এ ধরনের ঘটনা।

আরও পড়তে পারেন:

নাগাল্যান্ডে বাহিনীর গুলিতে নিহত ১৩ গ্রামবাসী, উত্তেজনা এড়াতে বন্ধ মোবাইল ইন্টারনেট, এসএমএস পরিষেবা

 নাগাল্যান্ডে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত ১৩ গ্রামবাসী, সর্বোচ্চ স্তরে তদন্তের আশ্বাস সেনার

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার ঝুঁকি সত্ত্বেও পুতিনের অস্ত্রে আগ্রহী ভারত

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন