mamata

কলকাতা: এগিয়ে আসছে পঞ্চায়েত ভোট। পথে নেমে পড়েছে বামেরা। মুকুল রায়কে দলে নিয়ে তৃণমূলকে ধাক্কা দেওয়ার মরিয়া চেষ্টা বিজেপির। এই অবস্থায় রাজ্য সরকার কি আর চুপ করে বসে থাকতে পারে! প্রাথমিক স্তরে চাকরি সহ আরও নানা পদক্ষেপের পাশাপাশি এবার একটি মাস্টার স্ট্রোক দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

পঞ্চায়েত ভোটের আগে গ্রাম-বাংলার কৃষকদের মন জয় করতে এবার ৬ হাজার কোটি টাকার ধান কেনার লক্ষ্যমাত্র ধার্য করল খাদ্য দফতর। মূলত অভাবী বিক্রি বন্ধ করতেই খাদ্য দফতরের এই উদ্যোগ। এই বছর মোট ৫২ মেট্রিক টন ধান কিনবে দফতর। মূলত খারিফ মরশুমে এই ধান কেনা হবে। সরকারি সংস্থা ইসিএসসি, কনফেড, বেনফেড ও সমবায় ব্যঙ্কের মাধ্যেমে কেনা হবে ধান। ধান কেনা সংক্রান্ত যে কোনও অভিযোগ জানাতে খাদ্য দফতর ২ টি ট্রোল ফ্রি হেল্প লাইন নম্বরও চালু করেছে। নম্বর দুটি হলো-  ১৮০০-৩৪৫-৫৫০৪ ও ১৮০০-৩৪৫-১৯৬৭। এই ২টি নম্বরে কৃষকরা সরাসরি ফোন করে অভিযোগ জানাতে পারবেন।

আরও পড়ুন: চিত্তরঞ্জন সেবা সদনেও মাদার অ্যান্ড চাইল্ড হাব তৈরি করতে চলেছে স্বাস্থ্য দফতর

জানা গিয়েছে, ৩৪ লক্ষ মেট্রিক টন ধান সমবায়গুলির মাধ্যমে কিনবে খাদ্য দফতর। মোট ৮০০টি সমবায় সংস্থা এর জন্য অস্থায়ী কাউন্টার খুলবে। আর বাকি ১৮ লক্ষ মেট্রিক টন ধান খাদ্য দফতর নিজস্ব ন্যায্য মূল্যের ধান কেন্দ্রের কাউন্টার থেকে কিনবে।

আগের বছর সরকারি ন্যায্য মূলের ধান বিক্রয় কেন্দ্রগুলিতে স্থানীয় তৃণমূল নেতারা কৃষকদের থেকে ধান কিনে তা বিক্রি করে দিচ্ছে, এমন অভিযোগ উঠেছিলো। একাধিক জেলা থেকে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের কাছে লিখিত অভিযোগ আসে। তাই এবার অনেক আগে থেকেই সর্তকতা অবলম্বনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কোনও জেলা থেকে এবার এই সংক্রান্ত অভিযোগ এলে, দ্রুত কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে খাদ্য দফতরের আধিকারিকদের।

খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “ মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে এই বছর কৃষকদের থেকে ধান কিনতে রেকর্ড সংখ্যক টাকা বরাদ্দ করছে খাদ্য দপ্তর। প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকার ধান এবার কৃষকদের থেকে সরাসরি কেনা হবে। আর ফোড়ে বা দালালরা যাতে ধান বিক্রি করতে না পারেন সেই বিষয়েও কড়া পদক্ষেপ করবে খাদ্য দপ্তর। মূলত কৃষকদের অভাবী বিক্রি বন্ধ করতেই আমরা এই পদক্ষেপ করছি”।

3 মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here