উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, সুন্দরবন: শীতে বেড়ানোর প্রিয় জায়গা সুন্দরবন। বছর শেষ হতে চলল অথচ এ বছর সুন্দরবনে পর্যটক সংখ্যা কম হওয়ায় রীতিমতো চিন্তিত পর্যটন ব্যবসায়ীরা। অন্য বছর শীত পড়তেই দেশি-বিদেশি পর্যটকে ভরে ওঠে সুন্দরবন। তবে এ বছর এখনও পর্যন্ত বিদেশি পর্যটকের সংখ্যা না কমলেও কমেছে দেশি পর্যটকের  সংখ্যা। কারণ হিসাবে উঠে আসছে সরকারের বাড়তি করের পাশাপাশি একাধিক ক্ষেত্রে ব্যয়বৃদ্ধি। সেই যুক্তি অবশ্য স্বীকার করা হয়নি সরকারি তরফে।

Sunderban

পর্যটন ব্যবসায়ীরা জানালেন, গত বছর পর্যন্ত দু’ দিন-এক রাতে সুন্দরবন বেড়ানোর খরচ ছিল মাথাপিছু  আড়াই-তিন হাজার টাকা। এ বছর সে খরচ বেড়ে হয়েছে চার হাজার টাকা। আগে ভ্রমণ কর ছিল ৬০ টাকা। আর এখন ১০০ টাকা। আগে গাইড ছিল ৪০০ টাকা। এখন ৫০০ টাকা। এবং গাইড নেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তা ছাড়া লঞ্চ-ভুটভুটির খরচও ভালো রকম বেড়েছে।

Sunderban

পাখিরালার এক অভিজাত হোটেলের ম্যানেজার জানালেন, “সারা বছরের দু’-তিন মাস আমরা মূলত দেশি ও বিদেশি পর্যটক পাই। সজনেখালি, পাখিরালা, বুড়িরডাবরী, নেতিধোপানি, সুধন্যখালি, ঝড়খালি-সহ বেশ কিছু জায়গা পর্যটকদের কাছে খুব প্রিয়। কিন্তু এ বছর বাড়তি করের চাপে এখনও পর্যন্ত দেশি পর্যটক খুব একটা বেশি আসেননি।”

পর্যটন বিভাগ সূত্রে অবশ্য জানা গেল, বেশ কয়েক বছর ধরে সুন্দরবনে ভ্রমণের খরচ বাড়ানো হয়নি। এ বছর সামান্য বাড়ানো হয়েছে ভ্রমণ কর। এর জন্য পর্যটক কমার কারণ নেই। আর এই বাড়তি করের টাকায় সুন্দরবনের উন্নয়নে খরচ করা হচ্ছে।

গোসাবা থেকে পাখিরালা অবধি রাস্তা সংস্কারের কাজ হচ্ছে। সাজানো হচ্ছে সুন্দরবনের বেড়ানোর জায়গাগুলি। সুন্দরবনের বেড়ানোর স্পটগুলি দেখে খুশি রাশিয়া থেকে আগত বিদেশি পর্যটকদের একটি দলও। তবে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মতে, শীতের শুরুটা তাঁদের জন্য মোটেই সুখবর বয়ে আনেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.