winter

ওয়েবডেস্ক: এই মুহূর্তে মেঘের আনাগোনা চলছে আকাশে। বুধবারের পরেই কেটে যাবে এই মেঘ। তার পরেই শেষ দফার শীতের কবলে পড়বে দক্ষিণবঙ্গ। তবে এই দফার শীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেশ কিছুটা কমলেও, সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ওপরের দিকেই।

এ বার শীতটা বড্ড তাড়াতাড়ি বিদায় নেওয়ার ফন্দি এঁটেছিল। শীতের এই তাড়াতাড়ি বিদায় মন থেকে মেনে নিতে পারেননি অধিকাংশ মানুষই। শেষ দফায় একটা শীতের কামড়ের প্রার্থনা করেছিলেন অনেকেই। সেই প্রার্থনাই কাজে এসেছে। অবশেষে ফিরে আসছে শীত।

শীত যে ফিরছে সেটা এখনই বোঝা যাচ্ছে। সোমবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ১৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মঙ্গলবার সেই তাপমাত্রা এক ডিগ্রি বাড়লেও, গত কয়েক দিনের তুলনায় তা কমই। দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলি বিশেষ করে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতেও ছবিটা একই রকম। সেখানেও কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা। গত কয়েক দিনে  দক্ষিণবঙ্গের উত্তরাংশে বিক্ষিপ্ত ভাবে ঝড়বৃষ্টি হয়েছে।

শীতের এই প্রত্যাবর্তন কী ভাবে সম্ভব হল?

এর পেছনে তিনটে কারণের কথা বলছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। বেশ কিছু দিন ধরেই উত্তর ভারতে প্রভাব ফেলেছে একটি শক্তিশালী পশ্চিমী ঝঞ্জা। যার ফলে কাশ্মীর, হিমাচল এবং উত্তরাখণ্ডে প্রবল তুষারপাত হয়েছে। সেই সঙ্গে মধ্য ভারত এবং বাংলাদেশে রয়েছে দু’টি ঘূর্ণাবর্ত। রবীন্দ্রবাবু বলেন, “উত্তরের তিন রাজ্যে প্রবল তুষারপাতের ফলে সেখান থেকে উত্তুরে হাওয়া দক্ষিণবঙ্গের দিকে এগিয়ে আসছে, মধ্য ভারতের ঘূর্ণাবর্তটি এই উত্তুরে হাওয়াকে পূর্বের দিকে ঠেলে দিচ্ছে, অন্য দিকে বাংলাদেশের ঘূর্ণাবর্তটি সেই হাওয়াকেই আবার নিজের দিকে টেনে আনছে। এর প্রভাবে উত্তুরে ঠান্ডা হাওয়া এগিয়ে আসছে দক্ষিণবঙ্গের দিকে।”

এর প্রভাবে আগামী এক সপ্তাহ কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নীচে থাকবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। তবে আগামী বৃহস্পতি এবং শুক্রবার শীতের বেশ ভালো কামড় টের পাবেন দক্ষিণবঙ্গবাসী। ওই দু’দিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে যেতে পারে ১৪ ডিগ্রির কাছাকাছি। পশ্চিমাঞ্চলের কোথাও কোথাও তাপমাত্রা দশ ডিগ্রির নীচে নেবে যাবে বলে মনে করেন রবীন্দ্রবাবু। তবে সামনের শনিবার থেকে আবার কিছুটা বাড়লেও দক্ষিণবঙ্গের তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিকের আশেপাশেই।

একটা ব্যাপারে এখনই নিশ্চিত হওয়া যায়, যে মার্চের আগে হয়তো আর প্রবল গরমের সম্ভাবনা বিশেষ নেই দক্ষিণবঙ্গে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here