রমাপদ চৌধুরী, ছবি সৌজন্য: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

কলকাতা: বার্ধক্যজনিত রোগের জন্য ২০ জুলাই বেলভিউ নার্সিংহোমে ভর্তি হন কথা সাহিত্যিক রমাপদ চৌধুরী। ২৯ জুলাই সন্ধে ৬-৩৫ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। রেখে গেলেন স্ত্রী, দুই কন্যা ও দুই পৌত্রী। ১৯২২ সালের ২৮ ডিসেম্বর জন্ম রমাপদবাবুর। আদি বাড়ি বর্ধমান। কলেজ জীবন থেকেই কলকাতায় থাকা। কালীঘাট অঞ্চলে বেশ কিছুদিন থাকার পরে গলফগ্রীন হয়ে আনোয়ারশাহ রোডে লর্ডস বেকারির কাছে থাকতেন। দীর্ঘ জীবন কাটিয়েছেন এই শহরে। কলেজ জীবন থেকেই লেখালিখি শুরু। পরে এম এ পাশ করেন। ১৯৫১-’৫২ নাগাদ কানাইলাল সরকার যেদিন আনন্দবাজারে নিয়ে আসেন তৎকালীন সম্পাদক অশোক সরকারের কাছে, সেদিন থেকে তিনি কাজে যুক্ত হন। ১৯৮২ তে অবসর নিলেও ২০১৩ পর্যন্ত অফিসে আসতেন। তাঁর বিখ্যাত কিছু বই নিয়ে চলচ্চিত্র হয়েছে। উল্লেখযোগ্য ‘দ্বীপের রং টিয়া’, ‘বাড়ি বদলে যায়’, ‘বাঘিনী’, ‘খারিজ’, ‘বনপলাশীর পদাবলী’, ‘দীপ জ্বেলে যাই’ ইত্যাদি। আনন্দমেলা ম্যাগাজিনের প্রথম ৪টি সংখ্যা তাঁর হাত দিয়ে প্রকাশিত হয়েছিল।  অর্জুন রায় ছদ্মনামে তিনি জ্যোতিষ নিয়ে ধারাবাহিক ভাবে লিখেছিলেন। মৃত্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here