নিজস্ব সংবাদদাতা, গুয়াহাটি ও জলপাইগুড়ি : এ কাহিনি দুই জায়গার দু’টি গন্ডারের। প্রথম কাহিনিটি খাদে পড়ে মৃত্যু মহিলা গন্ডারের আর দ্বিতীয় কাহিনিটি বিবাগী গন্ডারকে জঙ্গলে ফেরানোর।  

গরুমারার পুরুষ গন্ডারটি জঙ্গলে ফিরে গেলেও কাজিরঙার মহিলা গন্ডারটির জীবনে ফেরা হল না।   জল-কাদার খাদে আবদ্ধ হয়ে মারা গেল পূর্ণ বয়স্ক মহিলা গন্ডার।

কাজিরঙার আগরাতলি ডিভিশনের রাঙামাটি ফরেস্ট ক্যাম্প সংলগ্ন জঙ্গলাকীর্ণ এলাকায় বুধবার দুপুরের দিকে জল খেতে কর্দমাক্ত খাদে নেমেছিল গন্ডারটি। কিন্তু নিজের চেষ্টায় খাদ থেকে নিজেকে উদ্ধার করতে না-পেরে সেখানেই পড়ে থাকে সে। ঘটনা চোখে পড়ে কর্তব্যরত বনকর্মীদের। তাঁরা খবর পাঠান ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে। বিশাল পূর্ণবয়স্ক মহিলা গন্ডারকে জল-কাদা থেকে তুলে আনতে আসে উদ্ধারকারী এক দল। তাঁরা এসে খাদ থেকে পারে তুলে আনলেও গন্ডারটি নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারছিল না। মাটিতে শুয়ে পড়ে। অবশেষে বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে সে প্রাণত্যাগ করে বলে বন দফতরের সূত্রে জানা গিয়েছে। নিহত গন্ডারের খড়গও অক্ষত রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

rhino-goruএদিকে সোমবার সঙ্গিনীকে নিয়ে গরুমারা জাতীয় উদ্যানের ‘কোর’ এরিয়া ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসে একটি পুরুষ গন্ডার, যদিও স্ত্রী গন্ডারটি ফের নিজে থেকেই জঙ্গলে ফিরে যায়। সম্ভবত সেই দুঃখেই ‘বিবাগী’ পুরুষ গন্ডারটি ঢুকে পড়ে লাটাগুড়ির জঙ্গলে। এর পরেই চিন্তায় পড়ে যায় জলপাইগুড়ি বনবিভাগ। কারণ লাটাগুড়ি জঙ্গলের পাশেই রয়েছে বনবস্তি এলাকা। সেখানে ঢুকে পড়লে মানুষ ও গন্ডার দুইয়েরই ক্ষতি হতে পারে। আবার কোর এরিয়ার বাইরে চোরাশিকারিদের নজরে পড়ে গেলে তার প্রাণ সংশয়ের আশঙ্কা তো রয়েইছে। তাই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন বন দফতরের আধিকারিকরা। বুধবার বিকেলে থেকে নজরদারি চালিয়ে কলাখাওয়া নজরমিনারের কাছে তাকে খুজে পান বনকর্মীরা। কিন্তু দৃশ্যতই ক্ষিপ্ত ‘পুরুষ’টিকে কিছুতেই বাগে আনতে পারছিলেন না তাঁরা। শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার আসরে নামানো হয় সূর্য, আমন, ভোলানাথ, চম্পা আর মোতিরানিকে। বন দফতরের পোষা এই পাঁচ ‘কুনকি’ হাতি দিয়ে ঘিরে ফেলা হয় গন্ডারটিকে। তার পর তাড়িয়ে জঙ্গলে ঢুকিয়ে দেওয়া হয় তাকে। গজরাজদের সঙ্গে এঁটে উঠতে পারবেন না বুঝতে পেরে কিছুটা যেন বিরক্ত হয়েই তিনি গভীর জঙ্গলে ঢুকে যান। হাঁপ ছেড়ে বাঁচেন বনকর্মীরা। জলপাইগুড়ি বন্যপ্রাণ (২) বিভাগের বনাধিকারিক নিশা গোস্বামী জানিয়েছেন, তাঁরা গন্ডারটিকে নজরদারিতে রেখেছেন যাতে সেটি আবার বাইরে না বেরিয়ে আসে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here