এই পরিবারটি আর পাঁচটা পরিবারের থেকে একটু আলাদা। পারিবারিক সুত্রে এঁরা ব্যবসায়ী হলেও, ফুটবল এঁদের ধ্যান, ফুটবল এঁদের জ্ঞান। ক্ষুদে থেকে ষাটোর্ধ, পুরুষ থেকে মহিলা, ফুটবল বলতে সবাই অজ্ঞান। তাদের প্রিয় দল কী, জিজ্ঞেস করলে সবাই এক নিঃশ্বাসে বলে ইস্টবেঙ্গল।east3

হাবড়ার দাস পরিবার। ভারত স্বাধীন হওয়ার পর পূর্ববঙ্গের বরিশাল থেকে হাবড়ার দেশবন্ধু পার্কের কাছে চলে আসে এই পরিবারটি। স্থানীয় মানুষজনের কাছে দাস পরিবার হিসেবেই খ্যাতি তাঁদের। স্বাধীনতার পর ভিটে মাটি ছেড়ে এপারে চলে এলেও তার টান কি কখনও ভুলে থাকা যায়! ইস্টবেঙ্গলের মাধ্যমেই তাঁরা তাঁদের পূর্ববঙ্গের স্মৃতি ধরে রাখতে চান। ইস্টবেঙ্গলের খেলা মানেই গ্যালারির একটি বড়ো অংশের দখল নিয়ে নেয় এই পরিবার। সে আই লিগ হোক বা কলকাতা লিগের খেলা। কোনও কারণে যদি মাঠে যাওয়ার সুযোগ না আসে, তাহলে স্বপরিবার বসে পড়ে টিভির সামনে প্রিয় দলের সমর্থনে। যতক্ষণ খেলা চলবে ততক্ষণ তাঁদের টিভির সামনে থেকে নড়ানো যাবে না। বেশ কয়েক বছর আগে পর্যন্ত প্রিয় দলের সমর্থনে ২২০ ফুটের বিশাল ফ্ল্যাগ নিয়ে মাঠে যেত এই পরিবার। এই উন্মাদনায় অবশ্য কিছুটা ভাটা পড়েছে। মাঠে গেলেও ফ্ল্যাগটা নিয়ে যাওয়া হয় না।east2

আগামী বুধবার, পরিবারটির কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। লিগের ম্যাচে তাঁদের প্রিয় দলের মুখোমুখি হবে তাঁদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগান। ম্যাচ জিতলে আনন্দের কোনও বাধা থাকবে না, কিন্তু হেরে গেলে মোহনবাগান সমর্থকদের থেকে ভেসে আসবে টিটকিরি। এই মুহূর্তে ৭ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট পেয়ে লিগ শীর্ষে রয়েছে ইস্টবেঙ্গল। সম্ভাব্য লিগ চ্যাম্পিয়নও হয়তো তারাই। তবু এই পরিবারটির একটাই প্রার্থনা, লিগে যা হবে হোক, বুধবারের মহারণে শেষে হাসিটা যেন এই পরিবারের মুখেই লেগে থাকে।     

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here