নিজস্ব সংবাদদাতা, গুয়াহাটি : মণিপুরের হিংসাত্মক ঘটনা সেনাপতি জেলা পর্যন্ত ছড়িয়েছে। নাগা সংগঠনগুলির ডাকা অর্থনৈতিক অবরোধে ক্রুদ্ধ জনতার হাতে পুড়ছে একের পর এক গাড়ি। এখন পর্যন্ত  ২২খানা গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করার পাশাপাশি একটি বাসকে ঠেলে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে এ সব ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। অনির্দিষ্ট কালের জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছে। পরিস্থিতি নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে দেখে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ, এসএমএস, ফেসবুক, ইন্টারনেট ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়ার যাবতীয় চালাচালি ব্যবস্থা। নাগা-অনাগাদের মধ্যে সংঘাত চরমে ওঠায় রাজ্যের পরিস্থিতি এখন থমথমে। নাগাদের আহূত অর্থনৈতিক অবরোধের ফলে ইম্ফল-ডিমাপুর, ইম্ফল-জিরিবাম সড়কে যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যাহত হয়ে পড়েছে। এতে সংকট সৃষ্টি হয়েছে খাদ্যদ্রব্য, জ্বালানি, ওষুধ ইত্যাদির। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাজ্য পুলিশ ইউনাইটেড নাগা কাউন্সিলের কয়েক জন শীর্ষ নেতাকে আটক করেছে। তাদের বিনা শর্তে মুক্তির দাবিতেও হিংসা অন্য মাত্রা পেয়েছে।

এ দিকে মণিপুরে নাগারা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিশেষ চিঠি লিখেছেন নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রী টি আর জেলিয়াং। চিঠিতে তিনি মণিপুরে বসবাসকারী নাগাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহের কাছেও অনুরূপ জরুরি চিঠি পাঠিয়েছেন জেলিয়াং।

এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, মণিপুরের বিভিন্ন নাগা সংগঠন আহূত অর্থনৈতিক অবরোধ কর্মসূচির বিরুদ্ধে গতকাল রবিবার থেকে আজ সোমবার হিংসাত্মক কার্যকলাপ অন্যান্য জেলায় ছড়িয়ে ব্যাপক রূপ ধারণ করেছে। অর্থনৈতিক অবরোধে পূর্ব ইম্ফল-সহ সেনাপতি জেলার সাধারণ মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে।  

নাগাদের ওপর হামলার নিন্দা করেছে নাগা হোহো। এ সব ঘটনাবলির বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে নাগা হোহো এক ই-মেল বিবৃতিতে মণিপুরের মেইতেই সমাজকে এর জন্য দায়ী করে বলেছে, গোটা ঘটনার ওপর তারা তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রেখেছে। মণিপুরে নাগাদের ওপর অত্যাচার সহ্য করা হবে না। এর পরিণাম বিরূপ হতে পারে বলে নাগা হোহো–র তরফে হুমকি দেওয়া হয়েছে। গোটা ঘটনাবলির জন্য তারা মুখ্যমন্ত্রী ওখরাম ইবোবি সিংকে দায়ী করেছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here