সিরিয়ায় শান্তি ফেরাতে যৌথ পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করল রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। নতুন এই পরিকল্পনার ফলে সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা থেকে সিরিয়া সরকার ও বিরোধীদের মধ্যে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হবে।

যুদ্ধবিরতির ব্যাপারে শুক্রবার জেনিভায় আলোচনায় বসেন মার্কিন বিদেশ সচিব জন কেরি আর রুশ বিদেশমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। দিনব্যাপী এই আলোচনার পর কেরি বলেন, দেশব্যাপী যুদ্ধবিরতির এই সিদ্ধান্তকে সিরিয়ার সরকার আর বিরোধী উভয়পক্ষেরই সম্মান জানানো উচিত।

কেরি বলেছেন নতুন এই পরিকল্পনার ফলে সিরিয়ায় যেই সব জায়গায় বিরোধীরা উপস্থিত, সেখানে সামরিক অভিযান বন্ধ করবে রাষ্ট্রপতি বাশার-আল-আসাদের বাহিনী। আসাদের বাহিনীই যে সিরিয়ার সমস্যার জন্য দায়ী তাও বলেন কেরি। কেরির কথায়, “এর ফলে সিরিয়ায় জনবহুল এলাকায় ব্যারেল বোমার ব্যবহার বন্ধ হবে”।

কেরি আরও বলেছেন যুদ্ধবিরতির উদ্দেশ্যে নেওয়া আগের কোনও পরিকল্পনা কার্যকর হয়নি। নতুন এই পরিকল্পনাটি বাস্তবায়িত হলে সিরিয়ায় রাজনৈতিক পরিবর্তনে সব পক্ষের অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি হবে। পরিকল্পনাটি মেনে চলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সরকার, বিরোধী দুই পক্ষই।

কেরি আর ল্যাভরভের মতে সাত দিনের জন্য যুদ্ধবিরতি বজায় থাকলে, পরবর্তী পরিকল্পনা হিসেবে সিরিয়ায় আল-কায়দার শাখা সংগঠন আল-নুসরাকে উৎখাত করার উদ্দেশ্যে সামরিক সমন্বয়ের ব্যাপারে আলোচনা করবে দুই দেশ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here