Bank employee
নিহত ব্যাঙ্ককর্মী পার্থ চক্রবর্তী

ওয়েবডেস্ক: বন্ধন ব্যাঙ্কের কর্মী পার্থ চক্রবর্তী হত্যা তদন্তে প্রাথমিক ভাবে উঠে এল এক রহস্যময়ী তরুণীর ভূমিকা। বৃহস্পতিবার সকালে ডোমজুড়ের রাঘবপুর এলাকায় রক্তাক্ত বস্তা বন্দি হয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায় ওই ব্যাঙ্ককর্মীর কাটা পা। তখনই জানা যায়, ওই কাটা পা দু’টি পার্থবাবুর। তিনি বন্ধন ব্যাঙ্কের হাওড়ার সলপ শাখার কর্মী ছিলেন। সহকর্মীরা জানান, তিনি নদিয়ার চাকদহের বাসিন্দা। এর পরই পুলিশ তল্লাশি চালায়।

এ দিন পার্থবাবুর বাবা পঙ্কজ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, পুলিশের তরফে তাঁকে একটি সিসিটিভি ফুটেজ দেখানো হয়েছে। ওই ফুটেজে এক রহস্যময়ী তরুণীকে দেখা গিয়েছে। যিনি ডাকার পর তাঁর দিকে এগিয়ে যান পার্থ। ওই ফুটেজ দেখে পঙ্কজবাবু মনে করছেন, মহিলার সঙ্গে কথা বলতেই এগিয়েছিলেন তাঁর ছেলে। তার পরে অবশ্য সিসিটিভিতে ধরা পড়েনি পার্থর ছবি। ভিডিও যেখানে পাওয়া গিয়েছে সেখান থেকে দু’কিমি দূরে পাওয়া যায় তাঁর মুণ্ডহীন দেহ।

পঙ্কজবাবু আরও জানিয়েছেন, প্রতিদিন রাতেই বাড়িতে ফোন করতেন পার্থ। অফিসে কোনো একটা গন্ডগোল হচ্ছিল বলেও মা-কে জানিয়েছিলেন তিনি। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর তাঁর বাড়ি ফেরার কথা ছিল।


আরও পড়ুন: মালদহের মানিকচকে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনের হিংসায় গুলিবিদ্ধ তিন বছরের শিশু

উল্লেখ্য, বুধবার দুপুরে খুন হন পার্থ। তখন তাঁর সঙ্গে তিন লক্ষ টাকা ছিল বলেও জানা গিয়েছে। যদিও পুলিশের তরফে এখনও পর্যন্ত জোরালো কোনো তথ্য পেশ করা হয়নি। তবুও পার্থবাবুর বাবার নির্দেশিত সেই তরুণী সম্পর্কে পুলিশ খোঁজখবর নিতে পারে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন