ভেঙে পড়েছে সতীঘাট সেতু। নিজস্ব চিত্র।
indrani
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: দুর্যোগের স্মৃতি কাটিয়ে ক্রমশ ছন্দে ফিরছে বাঁকুড়া। মাত্র একটা রাতেই বাঁকুড়া শহরের প্রাণ নিঙড়ে নেয় অতি ভারী বৃষ্টি। তবে সোমবার রাত থেকে নতুন করে বৃষ্টি না হওয়ায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে বাঁকুড়াবাসী।

গন্ধেশ্বরী আর দ্বারকেশ্বরের জলস্তর কমেছে। তবে বাঁকুড়া শহরে গন্ধেশ্বরী নদীর উপর সতীঘাট ব্রীজের দু’দিক জলের তোড়ে ভেসে যাওয়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। বন্ধ রয়েছে যানবাহন চলাচল। এই কারণেই বাঁকুড়া-দুর্গাপুর ও বাঁকুড়া-রানিগঞ্জ রুটের যাত্রীবাহী বাসগুলিকে ঘুরপথে যেতে হচ্ছে। তবে রাস্তায় যানবাহনের সংখ্যা খুব কম।

আরও পড়ুন বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রামের পর এ বার ভাসছে ওড়িশার পুরী, বৃষ্টির পরিমাণ জানলে চমকে যাবেন

২৭ ঘন্টায় বাঁকুড়ায় বৃষ্টির পরিমাণ ৪১০ মিলিমিটার ছাড়িয়ে ছিল। সেই বৃষ্টির আতঙ্ক সাধারণ মানুষের মনে এখনও গেঁথে রয়েছে। জলের তোড়ে দু’তলা বাড়ির ভেঙে যাওয়ার স্মৃতি এখনও মুছতে পারছে না বাঁকুড়াবাসী। শহরের মধ্যেই অনেক বাড়িই জল ঢুকে ক্ষতিগ্রস্ত। জলের তোড়ে মাটিতে আছড়ে পড়েছে আসবাবপত্র। 

সব কিছু তছনছ। নিজস্ব চিত্র।
 

বাঁকুড়া শহরের সতীঘাট, অরবিন্দনগর এলাকায় জল নামলেও রাস্তার দু’দিকের অধিকাংশ দোকানের সলিল সমাধি ঘটেছে। বৃষ্টির জল নামলেও সাপের আতঙ্কে ভুগছেন স্থানীয়রা।

সব মিলিয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে এই শহর। 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন