শুভদীপ চৌধুরী, পুরুলিয়া: রাষ্ট্রপতি পুরস্কার পাচ্ছেন পুরুলিয়া জেলার গোবিন্দপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অমিতাভ মিশ্র । বাংলার মধ্যে একমাত্র তিনিই পাচ্ছেন এই পুরস্কার । কিন্তু রাজ্যের এত স্কুল থাকতে কেনই বা এই প্রত্যন্ত গ্রামের স্কুলটির এক শিক্ষক পাচ্ছেন এই পুরস্কার, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে অনেকেরই মনে ।

আদিবাসী প্রধান গ্রাম গোবিন্দপুরের স্কুলটিও আগে টালির বাড়ির মতোই ছিল, পড়ুয়ার নাম অনেক থাকলেও স্কুলে আসত নগণ্য কিছু ছাত্রছাত্রী । বছর বারো আগে স্কুলের প্রধান শিক্ষকপদে যোগ দিয়ে অমিতাভবাবু বদলে দেন সেই ছবি । সরকারি সহায়তা তো আছেই পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগে তিনি প্রায় পুরো ভোলটাই পাল্টে দিয়েছেন এই স্কুলের।

বর্তমানে এই স্কুলের চারিদিকে রয়েছে বাগান, দেওয়ালে আঁকা মনীষীদের ছবি ও তাঁদের বাণী । এটুকুই নয়, স্কুলের উৎপাদিত সবজি থেকে ছাত্রছাত্রীদের জন্যে চলে মিড ডে মিলের রান্না, আকাশের গ্রহ-নক্ষত্র দেখার জন্য স্কুলে রয়েছে দূরবীক্ষণ যন্ত্র। অনেকেই শুনে অবাক হয়ে যান,  জৈবসারও বানায় স্কুলের পড়ুয়ারা । শুধু কি তাই, স্কুলের খুদে পড়ুয়ারা নির্মল বাংলার কথা মাথায় রেখে গ্রামের ঘরে ঘরে তৈরি করিয়েছে শৌচালয় ।

২০১৭ সালে ইউনিসেফ এই স্কুলের বিষয়ে তৈরি করে এক তথ্যচিত্র । স্কুলের পড়াশোনার মান উন্নত হওয়ায় এই স্কুলে পড়ুয়াদের মধ্যে নেই স্কুলছুটের প্রভাব । শিক্ষক অমিতাভ মিশ্র বলেন, পড়ুয়াদের পড়াশোনার প্রতি মনোনিবেশ করাতে পারাটাই তাঁর কাছে বড়ো প্রাপ্তি। রাষ্ট্রপতি পুরস্কারের জন্য তাঁর নাম উঠে এসেছে জেনে তিনি আনন্দিত ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন