Barkati and Mamata
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শাহি ইমাম নুর-উর রহমান বরকতি। ছবি: ইন্টারনেট থেকে

ওয়েবডেস্ক: এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত শাহি ইমাম নুর-উর রহমান বরকতি গত শনিবার বলেছেন, তিনি বিজেপির হয়ে পথে নামতে পারেন যদি “আমাদের মতো নেতাদের টাকা দেয়”।

গত শুক্রবার টাইমস নাও-এর একটি স্টিং অপারেশন সম্প্রচারিত হয়। শোনা যায়, ওই ভিডিওতে বরকতি বলছেন, “টাকার বিনিময়ে মুসলমান ভোট পরিবর্তন করা যায়। বাংলায় সেন্টিমেন্ট বদলে গিয়েছে। ভিতরে ভিতরে মুসলমানরা বিজেপি-কে ভালোবাসতে শুরু করেছে। বিজেপি স্থির করেছে, রাজ্যে ২২টি আসনে জিতবে। আমি আপনাদের বলছি, তারা ২৮টা আসন পাবে। মুসলমান ভোটাররা যদি তাঁকে (মমতাকে) ভোট না দেন, তা হলে তিনি কী করবেন?  আমি বিজেপির জন্য মিছিল বের করব যদি তারা আমাকে টাকা দেয়”।

তার পরেই সানডে এক্সপ্রেস-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে একই কথার পুনরাবৃত্তি করেন বরকতি। তিনি বলেন, “সব থেকে বড়ো ইমাম হল টাকা। বিজেপির টাকা আছে। তারা যদি বাংলায় টাকা ছড়ায়, তা হলে দেখবেন মুসলমান ভোটাররা কী ভাবে তাদের ভোট দেয়। কোনো কিছুই বিনামূল্যে হয় না”।

বরকতির অনুমান, ২০১৯ লোকসভা ভোটে বিজেপি খুব বড়ো জোর ১০ শতাংশ মুসলমানের ভোট পেতে পারে। কিন্তু তারা যদি ৩০ শতাংশ ভোট পেতে চায়, তা হলে টাকা খরচ করতে হবে। এ ব্যাপারে তিনি নিজে উদ্যোগ নেবেন বলে দাবি করেন।

উল্লেখ্য, এক সময় মমতার ‘রাখি ভাই’ হিসাবে পরিচিত ছিলেন বরকতি। যদিও বরকতি নিজেই বলেছেন, “তৃণমূলের প্রতিটা ২১ জুলাই শহিদ দিবসে আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হতো। আমার উপস্থিতি অন্য একটা বার্তা বহন করত। এই প্রথমবার আমাকে শহিদ দিবসে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি”।

তবে ইউপিইউকে নামে একটি মিডিয়া স্পষ্টতই দাবি করেছে, “বিজেপি যদি ৫ কোটি টাকা দেয় তা হলে ৫ লক্ষ মুসলমান ভোটার পাবে”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন