BCKV

ওয়েবডেস্ক: পড়ুয়াদের পাশাপাশি শিক্ষকদের প্রতিবাদে চাপের মুখে পড়ে  স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ারের ডিনকে অপসারণের সিদ্ধান্ত নিলেন বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। পাশাপাশি ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের হামলা চালানো নিয়েও গত বুধবারের মন্তব্য থেকে একশো আশি ডিগ্রি ঘুরে গেলেন।

গত বেশ কয়েক দিন ধরেই ছাত্র আন্দোলনে উত্তাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। এগ্রিকালচার বিভাগ ও স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ারের ডিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে অবস্থান করছেন পড়ুয়ারা। সপ্তাহখানেক ধরে সেই আন্দোলন তুঙ্গে ওঠে। গত মঙ্গলবার অবস্থানরত ছাত্রদের উপর বহিরাগতদের হামলা চালানোর ঘটনাও ঘটেছিল।

আরও পড়ুন: বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থানরত পড়ুয়াদের ওপর বহিরাগতদের হামলা, শ্লীলতাহানি,আহত ২০

ওই ঘটনার পর উপাচার্য ধরণীধর পাত্র বলেছিলেন,  “বহিরাগত নয়, ক্যাম্পাসে আন্দোলনরত ছাত্ররা নিজেদের মধ্যে গন্ডগোল করেছে।”  তাঁর মুখে এমন মন্তব্যের পর পড়ুয়াদের পাশাপাশি শিক্ষকরাও প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন। অগত্য উপাচার্য বক্তব্য ও মত বদল করেন। তিনি এ দিন বহিরাগতদের হামলা চালানোর পূর্ণাঙ্গ তদন্তে একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত জানানোয় বহিরাগত-তত্ত্ব আদতে স্বীকার করে নিলেন বলেই পড়ুয়াদের মত। তবে পড়ুয়াদের পাশাপাশি শিক্ষকদেরও বক্তব্য, এর আগে বহু ছাত্র আন্দোলন হয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে, কিন্তু এ ভাবে বহিরাগতরা কোনো দিনই ভিতরে ঢুকতে পারেনি। এই ঘটনা চরম নিন্দনীয়।

আরও পড়ুন: বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে ২৪ ঘণ্টার সময়সীমা বেঁধে দিলেন অবস্থানরত পড়ুয়ারা

তিনি বলেন,”বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার ডিনকে তাঁর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা আধিকারিককে আর পুনর্বহাল করা হবে না বলে স্থির করা হয়েছে। বহিরাগতদের দ্বারা আন্দোলনরত পড়ুয়াদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।”

আরও পড়ুন: উপাচার্য-সহ দুই ডিনের কুশপুতুল দাহ করলেন বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থানরত পড়ুয়ারা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন