Mamata Banerjee and Mukul Roy
ফাইলচিত্র

ওয়েবডেস্ক:  গত বছর তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন প্রাক্তন সাংসদ মুকুল রায়। এক বছর না ঘুরতেই তাঁর ছেড়ে যাওয়া দলে ফেরার সম্ভাবনা প্রবল হয়ে উঠল। বিশেষ করে, সম্প্রতি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি তাঁর বিধায়ক পুত্র শুভ্রাংশু রায়কে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখতে যাওয়ার ব্যতিক্রমী ঘটনায় সেই ইঙ্গিত আরও জোরালো হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

ইংরাজি সংবাদ মাধ্যম ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস একটি প্রতিবেদনে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের নামোল্লেখ করে লিখেছে, বিজেপি মুকুলবাবুকে দলে নিয়েছিল তাঁর সাংগঠনিক দক্ষতার প্রতি আকৃষ্ট হয়েই। কয়েক দশক ধরে তিনি মমতার ছায়াসঙ্গী হিসাবে যে ভাবে তৃণমূল স্তরের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন, সেই অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতাকে কাজে লাগাতে চেয়েছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। কিন্তু রাজ্য নেতৃত্বের বহুধাবিভক্ত মানসিকতার জন্যই মুকুলবাবু বিজেপি ছেড়ে পুনরায় তৃণমূলে ফিরতে পারেন।

এমনিতে পঞ্চায়েত ভোটের সময় মুকুলবাবুকে নিয়ে বিজেপির অন্দরে কম জলঘোলা হয়নি। তাঁকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আহ্বায়ক করা নিয়ে মুখ খুলেছিলেন খোদ দলের রাজ্য সম্পাদক। আবার ভোট মিটে যাওয়ার দলের সভা-সমিতিতে ক্রমশ ম্রিয়মাণ হয়ে পড়তে শুরু করে মুকুলবাবুর গুরুত্ব। গত ১৬ জুলাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মেদিনীপুর সভায় তাঁর জন্য ম়ঞ্চের সব থেকে দুরবর্তী আসনটি বরাদ্দ করা হয়েছিল বটে, তবে বক্তব্য রাখার ক্ষেত্রে তেমন গুরুত্ব দেওয়া হয়নি।


পড়তে পারেন: তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন প্রসঙ্গে যা বললেন মুকুল রায়

শুভ্রাংশুকে হাসপাতালে দেখতে যাওয়ার ঘটনায় দিকে বড়োসড়ো ইঙ্গিত করছে ওই সংবাদ মাধ্যমটি। তাদের দাবি, সচরাচর দলের বিধায়করা অসুস্থ হলে তাঁদের দেখতে যাওয়ার ব্যাপারে এতটা আগ্রহ দেখান না তৃণমূলনেত্রী। এবং আরও বিস্ময়কর, মমতা যখন হাসপাতালে যান তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন মুকুলবাবুও। তবে দু’জনের মধ্যে কোনো আলোচনা হয়নি বলেই জানা গিয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন