Fisherman
ছবি: প্রতিবেদক

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, সুন্দরবন: দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার নদী খাঁড়িতে যন্ত্রচালিত নৌকা নিয়ে মাছ, কাঁকড়া ধরা নিষিদ্ধ করার প্রতিবাদে ক্যানিং, নামখানা, রামগঙ্গা, রায়দিঘি বন দফতরের অফিসের সামনে লাগাতার বিক্ষোভে শামিল হলেন প্রায় ৫০ হাজার মৎস্যজীবী।

১৯৮২ সালে সুন্দর বন ব্যাঘ্র প্রকল্পে (এসটিআর) -র আওতাধীন এলাকায় মৎস্য শিকার নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। তবু মৎজীবীরা নদীতে মাছ ধরা বন্ধ করেননি। কিন্তু গত ৭ আগস্ট সুন্দরবন রিজার্ভ ফরেস্ট (ডিএফও) নির্দেশ দিয়েছে, আওতাধীন এলাকায় যন্ত্রচালিত নৌকা চালানো যাবে না। কারণ, হিসাবে দেখানো হয়েছে যন্ত্র চালিত নৌকা চলাচল করলে এলাকায় দূষণ ছড়াবে, জঙ্গলের প্রাণীদের ঘুম ও প্রজননে ব্যাঘাত ঘটবে (মেমো নম্বর: ১৩৭৩/১৮)। সেখানে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, এই এলাকায় নিয়ম মেনে চলতে বাধ্য থাকবেন মৎস্যজীবীরা।

Fisherman
ছবি: প্রতিবেদক
আরও পড়ুন: মুম্বই থেকে নিয়ে আসা বিশেষ যন্ত্রের সাহায্যে ভাঙা হবে মাঝেরহাট সেতুর অবশিষ্টাংশ

এই নির্দেশিকার প্রতিবাদেই এ দিন থেকে লাগাতার চলছে বিক্ষোভ কর্মসূচি। ওয়েস্ট বেঙ্গল ইউনাইটেড ফিসারমেন অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি বলেন, এই নির্দেশিকা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত তাঁদের বিক্ষোভ চলবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন