indrani sen
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: এ বার বাণী বন্দনাতেও ‘থিমের ছোঁয়া’। সৌজন্যে বাঁকুড়া শহরের নতুনচটির ‘ফ্রেণ্ডস-৫০’ ক্লাব। এই ক্লাবের দু’লক্ষ কুড়ি হাজার টাকা বাজেটের সরস্বতী পুজোর এ বারের থিম বিষ্ণুপুরের লুপ্তপ্রায় ‘দশাবতার তাসে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের দশ রূপ’।

বিষ্ণুপুরের ঐতিহ্যবাহী অথচ লুপ্তপ্রায় এই শিল্পটি সম্পর্কে বর্তমান প্রজন্মের তেমন কোনো ধারণা নেই। মল্লরাজাদের বিষ্ণুপুরে এমন এক শিল্প রয়েছে সে ব্যাপারে হয়তো ওয়াকিবহাল নন অধিকাংশ জেলাবাসীই। সরস্বতীর প্যান্ডেলের মাধ্যমেই এই শিল্পটিকে তুলে জেলাবাসীর কাছে পৌঁছে দেওয়াই উদ্দেশ্য ছিল বলে জানিয়েছেন এই পুজোর উদ্যোক্তারা।  এই দশাবতার তাস থিম দর্শনার্থীদের কাছে যথেষ্ট আকর্ষিত হবে বলেই মনে করছেন তাঁরা।

১৯৯৫-এ বাঁকুড়ার নতুনচটিতে এই ক্লাবের যাত্রা শুরু। সারা বছর নানা সামাজিক কাজকর্মের পাশাপাশি প্রতি বছর নিয়ম করে এই ক্লাবের সৌজন্যে বাঁকুড়া শহরে সরস্বতী পুজো অন্য মাত্রা নেয়। সরস্বতী পুজোর দিন বাঁকুড়া এবং তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের মানুষের কাছে প্রধান আকর্ষণ এই ক্লাবের মণ্ডপ।  এ বারও যে তার অন্যথা হবে না এমনটাই আশা ক্লাব সদস্যদের।

উদ্যোক্তাদের পক্ষে ক্লাব সম্পাদক চন্দ্রশেখর গণ জানিয়েছেন, কোনো পেশাদার প্যান্ডেলশিল্পী নন এই ক্লাবের প্যান্ডেল তৈরি ও থিম ভাবনার দায়িত্বে আছেন ক্লাবেরই সদস্য পেশায় শিক্ষক সৌরভ দাস মোদক। তাঁর কাজে সহযোগিতা করেন ক্লাবের অন্য সদস্যরা। এ বছরের থিম প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “বাঁকুড়ার একেবারে নিজস্ব শিল্প দশাবতার তাসকে আমরা থিমের মাধ্যমে তুলে ধরতে চেয়েছি। আমাদের এই কাজ মানুষের ভালো লাগলে আগামী দিনেও এই ধরনের প্রয়াস অব্যাহত থাকবে।” একই সঙ্গে আগামী সাত দিন ক্লাবের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, দুঃস্থদের শীতবস্ত্র প্রদান সহ নানান সামাজিক কর্মকাণ্ড রয়েছে বলে জানা গেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন