weather in west bengal
ফাইল ছবি

কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় তৈরি হতে পারে, বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার সূত্র দিয়ে সেটা ২৪ ঘণ্টা আগেই জানিয়েছিল খবর অনলাইন। তখন আবহাওয়া দফতরের থেকে কিছু বলা হয়নি। কিন্তু এ বার ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কবার্তা দিয়ে দিল আবহাওয়া দফতরও।

বৃহস্পতিবার দুপুরের বুলেটিনে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বিকেলের মধ্যেই ঘূর্ণিঝড় ঘনীভূত হয়ে যেতে পারে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত অতিগভীর নিম্নচাপটি। এটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হলে তার নাম হবে ‘দায়ী।’ আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, নতুন ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে সরবে। বৃহস্পতিবার রাত বা শুক্রবার সকালে সেটি গোপালপুরের কাছ দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে।

এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রত্যক্ষ প্রভাব পশ্চিমবঙ্গে না পড়লেও, পরোক্ষ প্রভাব ভালো মতো পড়তে শুরু করে দিয়েছে। বুধবার রাত থেকেই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চলে জোর বৃষ্টি হয়েছে। তবে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায়। দিঘায় ১৫৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়, কাঁথিতে ৮৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়াও গড়ে ৪০ থেকে পঞ্চাশ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে দুই বর্ধমান, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুরেও। কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বৃষ্টি তুলনায় কম হলেও, গত কয়েকদিনের দুঃসহ গরম থেকে স্বস্তি পাওয়া গিয়েছে।

আরও পড়ুন রেল পথে বাংলাদেশের সঙ্গে দার্জিলিং জেলাকে সংযুক্ত করার উদ্যোগ

এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় দুই মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামে ভারী থেকে অতিভারী এবং দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। শুক্রবারও পশ্চিমাঞ্চলে ভারী বৃষ্টি হবে বলে জানানো হয়েছে।

কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে কমবেশি বৃষ্টি চলতে থাকবে বলে জানিয়েছে ওয়েদার আল্টিমা। বিক্ষিপ্ত ভাবে মাঝেমধ্যেই ভারী বৃষ্টিরও সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন