IIT KharagPur
আইআইটি খড়্গপুর। ছবি: লাইভমিন্ট থেকে

ঘটনাস্থলে জেলা প্রশাসন, উঠল অনির্দিষ্টকালীন ‘ধর্মঘট’

ওয়েবডেস্ক: খড়্গপুর আইআইটির গার্লস হস্টেলে বহিরাগত স্থানীয় ‘দুষ্কৃতী’দের তাণ্ডব নিরসনে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন, রাজ্য সরকার ও মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রকের কাছে অভিযোগ জানালেন কর্তৃপক্ষ। বলা হয়েছে, আইন-শৃঙ্খলা ভঙ্গকারী বহিরাগত ‘দুষ্কৃতী’দের হাতে শিক্ষক, পড়ুয়া ও কর্মীদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে, এ ব্যাপারে যেন যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রবিবার জয়েন্ট অ্যাকশন কমিটি নামে একটি স্থানীয় গোষ্ঠী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গার্লস হস্টেলে ঢুকে পড়ে। তারা চুক্তিভিত্তিক সাড়ে আটশো কর্মীকে হস্টেলের কাজে যোগ দিতে বাধা দেয়। হস্টেল পরিষ্কার এবং মেসের কাজে নিযুক্ত এই কর্মীদের বেশ কয়েকজনের উপর বলপ্রয়োগ করার অভিযোগও তুলেছেন কর্তৃপক্ষ।

ওই গোষ্ঠী রবিবার অনির্দিষ্টকালীন ধর্মঘটেরও ডাক দেয়। তবে পরে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সেই ধর্মঘট তুলে নেওয়া হয়। প্রশাসনের নির্দিষ্ট আশ্বাস পাওয়ার পরেই তারা মত বদল করে।

যদিও ওই গোষ্ঠীকে বহিরাগত আখ্যা দেওয়া হলেও তাদের দাবি, হস্টেলে যে সংখ্যক পড়ুয়া (প্রায় ১২ হাজার) আছেন, সেই অনুপাতে কর্মী নেই। তাদের দাবি, অবিলম্বে হস্টেল পরিষ্কার এবং মেসের কাজে পর্যাপ্ত কর্মী নিয়োগ করতে হবে।

কয়েক মাসেই এই হাল সিমেন্টের ঢালাই করা রাস্তার!

অন্য দিকে খড়্গপুর আইআইটি কর্তৃপক্ষের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওই গোষ্ঠীর কেউ-ই প্রতিষ্ঠানের প্রত্যক্ষ কর্মী নন। এমনকী বাইরে থেকেও তাঁদের নিয়োগ করা হয়নি। গত শনিবার বেআইনি ভাবে তাঁরা হস্টেলে ঢুকে পড়েন এবং কর্মীদের কাজে বাধা সৃষ্টি করেন। কর্মীদের ভীতিপ্রদশর্নের পাশাপাশি তাঁদের শারীরিক ভাবেও নিগ্রহ করা হয়।

ছাত্রীদেরও কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন, গত শনিবার বেশ কয়েকজন স্থানীয় দুষ্কৃতী জোর করে হস্টেলে ঢুকে পড়ে। বাইক এবং সাইকেল চড়ে তারা আসা ওই দুষ্কৃতীরা নিরাপত্তারক্ষীর নিষেধ মানেনি।পুরো বিশয়টি স্থানীয় থানায় জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

জানা গিয়েছে, আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত ঘটনার দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখবেন কর্তৃপক্ষ। আশা করা হচ্ছে তার মধ্যেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন